জঙ্গলমহলের দখল নিতে মরিয়া মমতা-অমিত, চার সমাবেশ আজ

জঙ্গলমহলের দখল নিতে মরিয়া মমতা-অমিত, চার সমাবেশ আজ

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে জঙ্গলমহলকে ঘিরে প্রচারের ঘনঘটা। আজ সোমবার ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির দ্বৈরথের সাক্ষী হতে চলেছে জঙ্গলমহল। তাদের দু’জনের চার জায়গায় জনসভা আছে আজ।

ঝাড়গ্রাম এবং বাঁকুড়ার রানিবাঁধে জনসভা করবেন অমিত শাহ। গতকাল রবিবারই তিনি পশ্চিমবঙ্গে গেছেন। খড়্গপুর সদরের বিজেপি প্রার্থী হিরণ চ্যাটার্জির সমর্থনে সন্ধ্যায় সেখানে একটি রোড শো করেছেন তিনি।

এরপর দলীয় নেতাদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। বিজেপি সূত্রে খবর, সোমবার সকাল ১১টায় ঝাড়গ্রামে প্রথম সভা করবেন অমিত শাহ। তার পর সেখান থেকে সোজা চলে যাবেন বাঁকুড়ায়।

এর আগে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া এবং বাঁকুড়া কেন্দ্রে জিতেছে বিজেপি। সেই ফল আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বাড়তি অক্সিজেনের কাজ করবে বলে মনে করছে বিজেপি। সে কারণে বিজেপি’র নির্বাচনী প্রচারের সূচনা হচ্ছে জঙ্গলমহল থেকে।

পুরুলিয়া, বাঁকুড়া এবং ঝাড়গ্রাম পুনর্দখলে জঙ্গলমহলে নিজেদের সর্বশক্তি উজাড় করে দিতে মরিয়া মমতা ব্যানার্জির দল। তৃণমূলনেত্রী মমতা যাচ্ছেন নির্বাচনী প্রচারে।

পুরুলিয়ার বাঘমুণ্ডি বিধানসভার ঝালদার হাটতলায় একটি সভা রয়েছে তার। সেখানে আজ দুপুর দেড়টা নাগাদ সভা হওয়ার কথা মমতা ব্যানার্জির। এরপর তিনি যাবেন বলরামপুরে।

সেখানে বিকেল ৩ টায় সভা করবেন তিনি। এখনো পায়ের চোট সারেনি তার। চোট পাওয়ার পর মমতা জানিয়েছিলেন, কোনো কর্মসূচি বাতিল করতে চান না। প্রয়োজনে হুইল চেয়ারে বসেই জনসভায় যাবেন। গতকাল রবিবার তার শুরুটা করেছেন নন্দীগ্রাম দিবস উপলক্ষে মেয়ো রোড থেকে হাজরা পর্যন্ত রোড শো-এ। হুইল চেয়ারে বসেই তিনি রোড শোতে হাজির হয়েছিলেন।

রোড শো শেষে কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশে মমতা বলেন, আমার ওপর ভরসা রাখুন। হুইল চেয়ারে বসেই ভাঙা পায়ে ঘুরব।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may use these HTML tags and attributes:

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

Related Posts

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৫৮,০৮৯,৯৩৫
সুস্থ
৯৪,৩৪০,০০৯
মৃত্যু
৩,২৯০,৪৬৬

সর্বশেষ