নতুন বিষয় জানা ও শেখার প্রতি আগ্রহ

নতুন বিষয় জানা ও শেখার প্রতি আগ্রহ

ছোটবেলা হতেই নতুন বিষয় জানা ও শেখার প্রতি আমার অনেক আগ্রহ ছিল। একসময় ছিলাম বইয়ের পোকা, নিত্য নতুন বিষয়ের উপর বই জোগাড় করে পড়ার চেষ্টা করতাম। বুয়েট থেকে ম্যাকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি নিয়ে দূর্ভাগ্যবশত সরাসরি সওদাগরি (বিজনেস) শুরু করি কোন প্রকার অভিজ্ঞতা ছাড়াই। অনেকটা ট্রায়াল এন্ড এরর মেথডে ধীরে ধীরে নিজের প্রতিষ্ঠানকে দাঁড় করিয়েছি। নিজের একটা এমবিএ কোর্সে ভর্তি হওয়ার প্রয়োজনীয়তা সবসময়ই অনুভব করি। কিন্তু কর্মব্যস্ততায় তা করে উঠার সুযোগ এখনো মিলে নাই। তাই কমফোর্ট জোন থেকে বের হয়ে নিজ উদ্যোগে ব্যবসা বিজ্ঞানের বিভিন্ন থিওরিটিক্যাল বিষয় নিয়ে পড়ালেখা করেছি, দেশি বিদেশি অনেকগুলো বিশ্ববিদ্যালয় এবং ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের ছোট ছোট সার্টিফিকেট কোর্সে ভর্তি হয়ে নিজের ব্যবসায়িক এবং মানবিক বিদ্যাকে শানিত করার চেষ্টা করছি। অর্জিত এইসব বিদ্যার যথাযথ প্রয়োগের কারনেই হয়তো আল্লাহর অশেষ রহমতে আজকে আমরা সম্মানের সাথে ব্যবসা করতে পারছি।
প্যানডেমিক চলাকালীন সময়ে সুযোগ হয়েছিল বেশ কিছু অনলাইন কোর্স করার। মালয়শিয়াতে বন্ধু জুয়েল অনেক আগে থেকেই জগদ্বিখ্যাত হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অনলাইন কোর্সে ভর্তি হতে আমাকে সাজেস্ট করেছিল, যার নাম Disruptive Strategy। এই কোর্স করে তার জীবন এবং ব্যবসায়িক চিন্তাধারণা আমূল পরিবর্তন এসেছিল। আর দুবাইতে আরেক বন্ধু সামস এটা কম্পলিট করে আমাকে এটাতে এনরোল করার জন্য আরো বেশি উৎসাহিত করে। কিন্তু টানা ছয়সপ্তাহ এই কোর্স করা আমার মতো অধৈর্য্য মানুষের পক্ষে অসম্ভব। কিন্তু করনোর কারনে যখন হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়, তখন মাথা ঠান্ডা রেখে সাহস করে এই কোর্স এ এনরোল করে ফেললাম। এই বয়সে একা পড়ালেখা করা অনেক কঠিন হবে, তাই সাথী হিসেবে জুটিয়ে নেই ভাই কে। অনেক ধন্যবাদ ভাই এই চমৎকার শিক্ষা আর অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের পরিক্রমায় সাথী হওয়ার জন্য।
তারপর শুরু হয় দেড় মাসের এক রোমাঞ্চকর যাত্রা। প্রতিদিন নিত্য নতুন ব্যবসায়িক সূত্র, দুনিয়া জুড়ে ঘটে যাওয়া দুর্দান্ত সব ব্যবসা’র সফলতা, প্রতিযোগিতা বা বিফলতার কেইস স্টাডিজ। কিভাবে নতুন বাজার সৃষ্টি হয়, কিভাবে একটি দাপুটে ব্যবসা সময় এবং স্ট্র‍্যাটেজিক কারনে পিছিয়ে পড়ে , আবার সম্পূর্ণ নতুন বানিজ্যিক আইডিয়া’র জন্ম হয় ইত্যাদি বিষয় নিয়ে চলে ছয় সপ্তাহের এক অনন্য অভিযাত্রা। কোর্স প্রণেতা Clayton Christensen আমার চোখ খুলে দেয়। যদিও উনি গত জানুয়ারী মাসে মারা গিয়েছেন কিন্তু তার রেকর্ড করা ছোট ছোট ভিডিও ক্লিপের মাধ্যমে আমাদের সবসময়ই মনে হয়েছে উনি ক্লাসরুমে আমাদের সাথেই আছেন। ব্যবসার কঠিন ব্যাপারগুলো কত সহজে উনি সাধারনভাবে বুঝিয়েছেন। ইন্টারেকক্টিভ এই কোর্সের মাধ্যমে আমরা অনেক কিছু শিখতে পেরেছি, সেই সূত্র অনুসারে নিজের ব্যবসা আরও বেশী সেবা উপযোগী ও সাস্টেইনেবল করার উদ্যোগও নিয়েছি।
কদিন আগে হার্ভার্ড এর এই কোর্সের অনলাইন সার্টিফিকেট হাতে পেয়ে আমি অনেক বেশি উচ্ছ্বসিত। এইজন্য আমি বিশেষ ভাবে ধন্যবাদ দিব আমার প্রানের বন্ধু জুয়েল এবং সামসকে, আমাকে এতে অংশগ্রহণ করায় উৎসাহিত করার জন্য। আমার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা বাদল ভাইয়ের প্রতি, অনেক ব্যস্ততার পরও আমাকে সঙ্গ দেবার জন্য। আর সিপিডিএল পরিবারের জিয়া ভাই, জামাল সহ সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ, এই ছয় সপ্তাহে আমাকে বিভিন্ন ডিসিশন মেকিং প্রসেস থেকে বিরত রাখার জন্য। যখন কোর্স চলছিল তখন মনোযোগ যাতে বিচ্ছিন্ন যাতে না হয় তাই মাঝেমাঝে দরজা আর মোবাইল দুটোই বন্ধ করে রেখেছিলাম। তখন হয়তবা সিপিডিএল এর স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড কিছুটা ব্যাহত হয়েছিল কিন্তু পরিপূর্ণ ভাবে মনোযোগ দেবার কারনে নতুন কিছু ইনোভেটিভ ব্যবসায়িক আইডিয়া এবং প্রসেস সম্পর্কে জানতে পেরেছি। আশা করছি, এই কোর্স থেকে যা শিখেছি তা যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে নিজের ব্যবসায়িক কার্যক্রম এবং সামাজিক উন্নয়নে অনেক বেশি অবদান রাখতে পারব, ইনশাআল্লাহ।
কোর্সের লিংক https://online.hbs.edu/courses/disruptive-strategy/…

No photo description available.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

You may use these HTML tags and attributes:

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

Related Posts

বিশ্বে করোনা ভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
সূত্র: আইইডিসিআর

বিশ্বে

আক্রান্ত
১৩২,৯২৪,৮৭৩
সুস্থ
৭৫,৬৪৮,৪৩৭
মৃত্যু
২,৮৮৫,০৮২

সর্বশেষ