মঙ্গল থেকে আর হয়তো ফেরা হবে না ১৮ বছরের এই এলিজার!

মার্কিন কিশোরী এলিজা কারসন কিছুদিন আগেই মঙ্গলগ্রহ অভিযানে যোগদান করার ইচ্ছাপ্রকাশ করে খবরের শিরোনামে ছিলেন। নাসার কনিষ্ঠতম এই সদস্য পৃথিবী থেকে মিলিয়ন মাইল দূরের ভিন্ন গ্রহের নাগরিক হওয়ার নেশায় মত্ত। সব কিছু অনুকূলে থাকলে এলিজা হবে ২০৩৩ সালে মঙ্গলে যাওয়া পৃথিবীর প্রথম মানুষ। নাসা বলছে, সে যেহেতু মঙ্গলে গেলে ফিরে আসার সম্ভাবনা খুবই কম তাই নাসার কাছে যৌনতা, বিয়ে বা সন্তানধারণের নিষেধাজ্ঞাপত্রতে স্বাক্ষর করতে হয়েছে তাকে।

জানা গেছে, ছোটবেলাতেই মাকে হারিয়েছেন এলিজা, তার বেড়ে ওঠা বাবার কাছেই। বাবার হাত ধরেই মাত্র ৭ বছর বয়সে এলিজার স্পেস ক্যাম্পে যাওয়া, আর সেখান থেকেই স্বপ্ন বুনতে শেখা ছোট্ট কিশোরীর। পরে ১২ বছর বয়সে এলিজা সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে আলবামা, কানাডার কুইবেক ও তুরস্কের ইজমিরে নাসার তিনটি ভিন্ন স্পেস ক্যাম্পে অংশ নেয়। তাকে সাহায্য করেছিলেন নাসা’র এক মহাকাশচারী সান্ড্রা ম্যাগনাস। মহাকাশের বেসিক জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি বিভিন্ন মিশন কিভাবে পরিচালিত হয়, তা শিখে নিয়েছে এলিজা।

এর আগে, এলিজার যখন ৯ বছর বয়স তখন তার সাথে দেখা হয় নাসা’র এক মহাকাশচারী সান্ড্রা ম্যাগনাসের। এই নারী মহাকাশচারী তাকে জানিয়েছিলেন ছোটবেলাতেই তিনি মহাকাশে যাওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। এই কথা ছোট্ট এলিজার চোখে মহাকাশে যাওয়ার স্বপ্ন গাঢ় ও দৃঢ় করেছিলো।

এলিজা জানে, সে হয়তো আর ফিরে আসবেনা এই পৃথিবীতে। আর মাত্র ১৪ বছর পরে একমাত্র নিঃসঙ্গ মানুষ হিসেবে কোটি কোটি মাইল দূরের লোহার লালচে মরিচায় ঢাকা প্রচণ্ড শীতল নিষ্প্রাণ গ্রহের ক্ষীয়মাণ নীল নক্ষত্রের নিচে হারিয়ে যাবে। তবে তাতে ভীত নয় সে। পোজামের মহাকাশ গবেষক এলিজার সাহসিকতা নিয়ে বলেন, ‘এ বয়সে মহাকাশ যানে ঘুরে বেড়ানো বা ভিন্ন গ্রহে যাওয়ার ইচ্ছা থাকাটা স্বাভাবিক। এলিজাই প্রথম ব্যক্তি হিসেবে এতো কম বয়েসে নাসার ১৪ টি দর্শনার্থী কেন্দ্র যাওয়ার এবং ঘুরে দেখার সুযোগ পেয়েছেন। এছাড়াও “মার্স ওয়ান” নামের এক বেসরকারি সংস্থা তাকে তাদের সংস্থার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর করে। কোনো ছোট খাটো স্বপ্ন এলিজা যে দেখেনি তা সে খুব ভালোই জানে। আর এই স্বপ্নপূরণ করাও সহজ নয়, কিন্তু সে বিশ্বাস করে এই স্বপ্নপূরণ করা আবার দুঃসাধ্যও নয়। তার কথায়- ‘Always Follow Your Dream and Don’t let Anyone Take it From You’।

সূত্র : সংবাদ অনলাইন।

প্রেমিকাকে জন্মদিনে উপহার দিতে উট চুরি করল যুবক!

জন্মদিনে সঙ্গীকে উপহার দেওয়া সব মানুষের কাছেই খুব বিশেষ একটা ব্যাপার। মনের মানুষের বিশেষ দিনটিকে আরও আনন্দদায়ক করে তোলার চেষ্টা সকলেরই থাকে। উপহার কেমন হবে, কোনটা সঙ্গীর ভালো লাগবে সেই নিয়ে পরিকল্পনা থাকে বিস্তর। কেউ হাতে বানানো জিনিস দিয়ে খুশি করে, কেউ আবার সঙ্গীর পছন্দের কোনও জিনিস দিয়ে। অনেক ক্ষেত্রে সঙ্গী আবার নিজেই চেয়ে নেয় কী উপহার লাগবে।

এমনই এক সঙ্গীর ইচ্ছে মেটাতে গিয়ে, তাকে তার পছন্দ মতো উপহার দিতে উটের বাচ্চা চুরি করলেন দুবাইয়ের এক যুবক। ওই যুবক বোধ হয় স্বপ্নেও ভাবেননি যে তার প্রেমিকা তার জন্মদিন উপলক্ষ্য়ে একটা উটের বাচ্চা চেয়ে বসবেন। জানা গেছে, চলতি মাসে জন্মদিন ছিল ওই যুবকের প্রেমিকার। জন্মদিন উপলক্ষ্যে উট উপহার দিতে হবে, এমনই অদ্ভুত দাবি জানিয়েছিলেন ওই তরুণী। প্রেমিকাকে খুশি করতে উট উপহার দিতে হবে, কিন্তু কিনে দেওয়ার ক্ষমতা নেই। যা কেনার ক্ষমতা নেই, তা চুরি করলেই হয়। এমনই ভাবনা থেকে একটি উট খামার থেকে এক সদ্যজাত উটকে চুরি করেন ওই যুবক।

খামারের মালিক পরের দিন সকালে উটের বাচ্চাটিকে দেখতে না পেয়ে খোঁজা শুরু করেন। কোথাও না পাওয়ায় পুলিশে খবর দেন। একটি লিখিত অভিযোগও দায়ের করেন তিনি। পুলিশ খামারে পৌঁছে উটের বাচ্চাটির সন্ধানে তল্লাশি চালিয়ে কোথাও সেটার খোঁজ না পাওয়ায় বুঝতে পারে যে উটের বাচ্চাটি চুরি হয়েছে। এরপর শুরু হয় তদন্ত।

কয়েকদিন পর পুলিশের কাছে ওই যুবক জানায়, তার ফার্মের কাছে একটি উট পাওয়া গেছে। পরে পুলিশ তার খামারে একটি দল পাঠায়। কিন্তু তারা তার কথা শুনে বিশ্বাস করেনি। পুলিশ আরও তদন্তের সিদ্ধান্ত নেয়। উটটি চুরি হওয়া ফার্ম ও ওই যুবকের ফার্মের মধ্যে তিন কিলোমিটারের দূরত্ব রয়েছে। তবে ওই বাচ্চা উটটি হেঁটে এত দূর আসতে পারে না, এমনটাই দাবি পুলিশের।

পরে পুলিশের জেরায় ওই যুবক চুরির কথা স্বীকার করে জানান, বিরল প্রজাতির উটটির দাম বেশি। তাই প্রেমিকার জন্মদিনে উটটি উপহার হিসেবে দেওয়া হয়। রাতে ফার্ম থেকে উটটি চুরি করেছেন এবং নিজের ফার্মের কাছে উটটি পাওয়া গেছে এমন গল্প সাজান।  শেষ পর্যন্ত ওই যুগলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

বিডি-প্রতিদিন

মানসিক অস্থিরতা দূর করে যেসব খাবার

বিষণ্ণতা ধীরে ধীরে আমাদের মন থেকে শরীরে প্রভাব ফেলতে শুরু করে। মনের অসুখের দ্রুত চিকিৎসা না করালে ছুটতে হয় শরীর নিয়েও। ঘন ঘন মন খারাপ বা মানসিক অস্থিরতায় ভুগলে তাই পরামর্শ নিতে হবে মনরোগ বিশেষজ্ঞের। অবশ্য সমাধান দিয়েছেন পুষ্টিবিদরাও। মন খারাপ ভাব কাটানোর জন্য আছে বিশেষ কিছু খাবার। আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনে সেই সব খাবারের কথাই তুলে ধরা হলো-

ভিটামিন ডি

মানসিকভাবে শক্তিশালী থাকতে ভিটামিন ডি ভালো কাজ করে। এই ভিটামিন মেজাজ খিটখিটে হতে বাধা দেয়। কোনও কারণ ছাড়া হতাশা গ্রাস করলে বুঝবেন শরীরে হয়তো ‘ভিটামিন ডি’ এর ঘাটতি আছে। এর অভাব পুষিয়ে নেওয়া যায় সহজেই। দুধ, কুসুমসহ ডিম, সূর্যের আলো ‘ভিটামিন ডি’ এর জন্য যথেষ্ট। প্রতিদিন সকাল দশটা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সূর্যালোকে থাকার চেষ্টা করুন।

ভিটামিন বি-১২

অবসাদ, ক্লান্তি ইত্যাদি বেড়ে যায় ‘ভিটামিন বি ১২’ এর অভাবে। গড়ে প্রতিটি মানুষের প্রতিদিন ২.৪ মাইক্রোগ্রাম পরিমাণ ‘ভিটামিন বি ১২’ এর দরকার হয়। পনির, কম চর্বিযুক্ত দই, দুধ- এসব ‘ভিটামিন বি ১২’ এর চাহিদা পূরণে বেশি ভূমিকা রাখে। আধুনিক বিজ্ঞান বলে ‘ভিটামিন বি ১২’ আমাদের শরীরে ভালো লাগার হরমোনকে উদ্দীপ্ত করে। ফলে মেজাজ ফুরফুরে থাকে।

ম্যাগনেসিয়াম

মানসিক যেকোনও সমস্যা মোকাবিলায় ম্যাগনেসিয়াম গুরুত্বপূর্ণ। এটাকে প্রাকৃতিক ব্যাথানাশক বললেও ভুল হবে না। ডার্ক চকলেট, পালং শাক, বাদামে প্রচুর ম্যাগনেসিয়াম পাওয়া যায়।

ভিটামিন সি

‘ভিটামিন সি’-কে বলা যেতে পারে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার যম। জটিল পরিস্থিতিতে পড়লে আগে এক গ্লাস কমলার জুস খেয়ে দেখা যায়। মাথার ভার অনেকটাই কমে আসবে। মনকে সতেজ ও শক্তিশালী রাখতে ভিটামিন সি অনবদ্য।

 

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে বেল

অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভাসের কারণে প্রায়ই অনেকের হজমের সমস্যা দেখা দেয়। ফলে বদহজম, গ্যাস, কোষ্ঠকাঠিন্য, পেট ব্যাথা সমস্যা লেগেই থাকে। এসব সমস্যা থেকে মুক্তি পাবার জন্য বেলের শরবত একমাত্র সমাধান। রোজ বেলের শরবত হজম প্রক্রিয়াকে উন্নত করে।

সর্বরোগ থেকে মুক্তি পেতে বেল স্মৃতিশক্তি বাড়াতে বেল আধা পাকা সেদ্ধ ফল আমাশয়ে অধিক কার্যকরী। বেল পেট ঠাণ্ডা রেখে খাবার হজমে অত্যন্ত সহায়তা করে। বেলের শরবত হজমশক্তি বাড়ায় এবং শক্তি বৃদ্ধি করে। বেলের পাতার রস মধুর সঙ্গে মিশিয়ে পান করলে চোখের ছানি ও জ্বালা উপশম হয়। পাতার রস, মধু ও গোল মরিচের গুঁড়া মিশিয়ে পান করলে জন্ডিস রোগ নিরাময় হয়।

বেল পুষ্টিগুনে ভরপুর। ১০০ গ্রাম বেলের শাঁসে থাকে- পানি ৫৪.৯৬-৬১.৫ গ্রাম, আমিষ ১.৪-২.৬২ গ্রাম; স্নেহ পদার্থ ০.২-০.৩৯ গ্রাম; শর্করা ২৮.১১-৩১.৮ গ্রাম; ক্যারোটিন ৫৫ মিলিগ্রাম; থায়ামিন ০.১৩ মিলিগ্রাম; রিবোফ্ল্যাবিন ১.১৯ মিলিগ্রাম; নিয়াসিন ১.১ মিলিগ্রাম; এসকর্বিক এসিড ৮-৬০ মিলিগ্রাম এবং টারটারিক এসিড ২.১১ মিলিগ্রাম।

নানা ঔষধি গুণে ভরপুর বেলের মৌসুম চলছে। সর্বরোগ থেকে মুক্তি পেতে নিয়মিত এই ফল খেতে পারেন। বেলের ভিটামিন সি শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। বেল নিয়মিত খেলে কোলন ক্যানসার হওয়ার আশঙ্কা অনেকাংশে কমে যায়।

 

মৃত্যুর ৮ মাস পর সেরা অভিনেতার পুরস্কার পেলেন সুশান্ত

গত বছরের ১৪ জুন ভারতের মুম্বাইয়ের বান্দ্রার নিজ ফ্লাট থেকে সুশান্ত সিং রাজপুতের মরদেহ উদ্ধার হয়। তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে পুলিশের দাবি। এ নিয়ে বিস্তর তদন্ত চললেও এখনও পর্যন্ত এই মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হয়নি।

তবে মৃত্যুর ৮ মাস পর বিনোদন জগতে অবদানের জন্য সুশান্তকে (সেরা অভিনেতা) ‘মরণোত্তর’ পুরস্কারে সম্মানিত করা হয়েছে। দাদা সাহেব ফালকে ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল থেকে এ ঘোষণা আসে রবিবার।

এ আসরে সিনেমা ও ওয়েব দুনিয়া মিলিয়ে একাধিক বিভাগে পুরস্কার দেওয়া হয়। সেরার স্বীকৃতি পেয়েছেন বলিউডের নামি-দামি তারকারাও। এর মধ্যে সুশান্তর পুরস্কার প্রাপ্তিতে খুবই আপ্লুত তার ভক্তেরা।

মেঘনা গুলজার পরিচালিত ‘ছাপক’ সিনেমায় অনবদ্য অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেত্রী নির্বাচিত হয়েছেন দীপিকা পাড়ুকোন।

হরর-কমেডি ছবি ‘লক্ষ্মী’তে অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেতা হয়েছেন অক্ষয় কুমার।

সমালোচকদের বিচারে ‘গিলটি’র জন্য সেরা অভিনেত্রী হিসেবে মনোনীত হয়েছেন কিয়ারা আদভানি।

ব্ল্যাক-কমেডি ‘লুডো’র জন্য সেরা পরিচালকের শিরোপা পেয়েছেন অনুরাগ বসু।

সেরা ছবি মনোনীত হয়েছে অজয় দেবগণ-সাইফ আলী খান অভিনীত ‘তানাজি: দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’।

ওয়েব সিরিজ ‘আরিয়া’র জন্য সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন সুস্মিতা সেন।

এছাড়া ‘আশ্রম’ ওয়েব সিরিজের জন্য সেরা অভিনেতা ববি দেওল ও ‘লুটকেস’ ছবিতে কমেডি চরিত্রে অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেতার পুরস্কার পেয়েছেন কুণাল খেমু।

বিডি প্রতিদিন

হুইলচেয়ারে বসে বিমানবন্দরে কপিল, ভিডিও ভাইরাল

জনপ্রিয় বলিউড কৌতুক অভিনেতা ও উপস্থাপক বিমানবন্দরে হাজির হলেন হুইল চেয়ারে বসে। এ অবস্থায় তাকে দেখে অনেকেই অবাক হয়েছেন। তবে কপিল কেন হুইল চেয়ারে বসে হাজির হলেন, সে বিষয়ে কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। খবর জি নিউজের।

খুব সম্প্রতি দ্বিতীয় সন্তানের বাবা হন কপিল শর্মা। তিনি পিতৃত্বকালীন ছুটি কাটাচ্ছেন। দ্বিতীয় সন্তানের জন্মের পর বেশ কিছুদিন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটিয়ে তবেই তিনি ফের শুটিং ফ্লোরে ফিরবেন বলে স্পষ্ট জানান কপিল। এদিকে, ফেব্রুয়ারির মাঝ পথে বন্ধ হয়ে যাবে দ্য কপিল শর্মা শো। শোয়ের বেশ কিছু পরিবর্তন ঘটিয়ে তবেই তা ফিরবে শো-টি।

এখনও নিখিলের ক্রেডিট কার্ড নিয়ে যশের সঙ্গে ঘুরে বেড়ান নুসরাত?

ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও সংসদ সদস্য নুসরাত জাহানের কাছে বিবাহবিচ্ছেদের নোটিশ পাঠিয়েছেন তার স্বামী নিখিল জৈন।

যদিও আগে থেকেই বিষয়টি আঁচ করা যাচ্ছিল, তবে এবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছেদের পথ বেছে নিলেন নিখিল।
এর মধ্যেই প্রকাশ্যে আসল চাঞ্চল্যকর তথ্য। বেশ কিছু দিন ধরেই তাদের দাম্পত্যে ফাটল ধরেছে। দু’জনের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হলেও আজও নিখিলের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেন নুসরাত। তবে নিখিল তাতে কোনও দিন বাধা দেননি। যশের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানো, একসঙ্গে রাজস্থানে আজমিরে ছুটি কাটাতে যাওয়া কোনও কিছু নিয়েই কোনও দিন মুখ খোলেননি নিখিল। এমনকি তার নেটমাধ্যমেও কোনও নুসরাত-বিরোধী পোস্ট দেখা যায়নি।

বরং ভালবাসা দিবসের দিন আকারে ইঙ্গিতে বলেছিলেন, নুসরাত বদলে গেলেও তিনি একই রকম আছেন। কিন্তু অবশেষে বাধ্য হয়ে তিনি বিচ্ছেদের পদক্ষেপ নিলেন। মনে করা হচ্ছে, বিচ্ছেদের পর নুসরাত মোটা টাকা খোরপোষ দাবি করবেন। কারণ তার অতীতের সম্পর্কেও একই রকম ইতিহাস জানা যায়। বিয়ে না করলেও বিচ্ছেদের সময় প্রেমিকদের সঙ্গে অনেক টাকার আদানপ্রদান হয়েছিল।

তবে ইনস্টাগ্রাম বলছে, নুসরাতের সঙ্গে সম্পর্কের তিক্ততা থাকলেও তার বোন নুজহাত জাহানের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখেছেন নিখিল। তা হলে কি এই বিচ্ছেদ আরও গাঢ় করবে ‘যশরত’-এর সম্পর্কও? যশের সঙ্গেই কি নতুন অধ্যায় শুরু হবে নুসরাতের? এখন সেটাই দেখার। সূত্র: আনন্দবাজার

নাসিরের স্ত্রীর আগের স্বামীসহ ৪ জনের লিগ্যাল নোটিশ

বিয়ে ও ডিভোর্সের রেজিস্ট্রেশন ছবিসহ ডিজিটালাইজ করার পদক্ষেপ নিতে সরকারের তিন সচিবকে আইনি নোটিশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী। নোটিশ প্রাপ্তির তিনদিনের মধ্যে পদক্ষেপ নিতে অনুরোধ করা হয়েছে।

সোমবার একটি বেসরকারি সংস্থার সেক্রেটারি এবং তিন ব্যক্তির পক্ষে আইন সচিব, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব এবং ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব বরাবর এ নোটিশ দিয়েছেন আইনজীবী ইশরাত হাসান।

নোটিশদাতারা হলেন, মাগুরার শালিখা উপজেলার বদরুদ্দিন মন্ডলের ছেলে মো. সোহাগ হোসেন, উত্তরা মডেল টাউনের ৫ নম্বর সেক্টরের মো. নজরুল বিশ্বাসের ছেলে মো. রাকিব হাসান, নোয়াখালী সদরের আমির হোসেনের ছেলে মো. কামরুল হাসান এবং এইড ফর ম্যান ফাউন্ডেশনের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির সেক্রেটারি সাইফুল ইসলাম।

এর মধ্যে রাকিব হাসান সদ্য বিয়ে করা ক্রিকেটার নাসির হোসেনের স্ত্রী তামিমা সুলতানা তামির আগের স্বামী।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান এ নোটিশ পাঠান।

নোটিশের তথ্যমতে, বিবাহ ও ডিভোর্স রেজিস্ট্রেশন ডিজিটালি না হওয়ায় ভুক্তভোগীরা অসংখ্য মামলায় জড়াচ্ছেন। তাই ছবিসহ ওয়েবসাইটে বিবাহ ও ডিভোর্সের রেজিস্ট্রেশন করা থাকলে যে কোনো পক্ষ বিয়ের আগে তা দেখে নিতে পারেন। আর কমবে মামলার সংখ্যাও।

বিডি-প্রতিদিন

সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নূর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর বলেছেন, নির্বাচন, ভোট, সভা-সমাবেশ সবইতো হচ্ছে। গণপরিবহনও চলছে শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কোনো কারণ থাকতে পারে না। এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।

তিনি আজ রাত ৮টায় বেসরকারি টিভি চ্যানেল নিউজ টোয়েন্টিফোরে ‘হল খোলার দাবি ও বাস্তবতা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

নূর বলেন, সরকার আগামী ২৪ মে সব বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। আমার প্রশ্ন হলো করোনার পরিবেশেতো সবই চলছে। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কে ঈদের পরে খুলবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় অবিবেচকের মতো সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন

ঢামেক হাসপাতালে নার্সদের হাতাহাতি, আহত ১

ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের পুলিশ ক্যাম্পের সামনে নার্সদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল নার্সিং কলেজের ছাত্র আল আমিন।

জানা যায়, নার্সরা তিন দফা দাবি নিয়ে কয়েক দিন ধরে আন্দোলন করে যাচ্ছে। এই আন্দোলনের কর্তৃত্ব পাওয়ার জন্য ডিপ্লোমা নার্সিং ও বিএসসি নার্সদের মধ্যে কোন্দল ছিল। এ কোন্দল থেকেই হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে শাহবাগ থানা ও ঢাকা মেডিক্যাল ক্যাম্পের পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ বিষয়ে ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক জানান, হাসপাতালের সীমানার মধ্যে মারামারি এটা মেনে নেওয়া যাবে না। বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

বিডি প্রতিদিন