বঙ্গবন্ধু কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জে বঙ্গবন্ধু কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেলে পাতারহাট রসিক চন্দ্র মহাবিদ্যালয়ের মাঠে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধু কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন সংসদ সদস্য পংকজ নাথ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পংকজ নাথ বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। আমরাই গড়বো বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ।

এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান মাহাফুজ-উল আলম লিটন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পিযুষ চন্দ্র দে, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম ভুলু এবং থানার ওসি মো. আবুল কালাম সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মুজিব বর্ষ উপলক্ষে ২০২০ সালে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টটি গত বছর মার্চে করোনার প্রকোপের কারণে স্থগিত হয়ে যায়।

বিডি প্রতিদিন

যে কারণে থানায় অভিযোগ করলেন সৌরভের স্ত্রী

তার নামে একটি ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট তৈরি করে পারিবারিক ছবি শেয়ার করা হচ্ছিল। তাই সরাসরি পুলিশের দ্বারস্থ হলেন সৌরভ গাঙ্গুলীর স্ত্রী ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়। বুধবার পুলিশের এক কর্মকর্তার সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, সেই প্রোফাইল থেকে ডোনা, সৌরভ ও সানার ছবি শেয়ার করা হচ্ছিল বেশ কিছুদিন ধরেই।

সেই কর্মকর্তা জানান, “গোটা ঘটনা আমরা তদন্ত করে দেখছি, কে বা কারা এ ঘটনার পেছনে রয়েছে। দোষীকে দ্রত ধরা হবে।’

জানা গেছে, যে আইপি এড্রেস ব্যবহার করে প্রোফাইল তৈরি করা হয়েছিল, সেটি শনাক্ত করা হয়েছে। ডোনাকে এই ফেক প্রোফাইলের বিষয়ে অবহিত করেন তারই এক ছাত্রী। তারপরেই তিনি পুলিশকে বিষয়টি জানান।

তিনি পিটিআইকে জানান, “আমার নামের একটি প্রোফাইলে দাদার (সৌরভের) ছবি লাগিয়ে একাউন্ট তৈরি করা হয়েছিল। আমারই এক ছাত্রী আমাকে বিষয়টি জানায়। তারপরই আমরা পুলিশে অভিযোগ দায়ের করি। আমার অথবা সৌরভের ছবি ব্যবহার করলে আপত্তি করার কিছু ছিল না। তবে কিছু ক্ষেত্রে এমন বিষয়ে মন্তব্য করা হয়, যাতে সবাই ভাবতে পারেন আমাদের মতামত সেটি। এই বিভ্রান্তি এড়ানোই আমাদের উদ্দেশ্য। আশা করি, এই ভুয়া একাউন্ট বন্ধ করে পুলিশ আমাদের সাহায্য করবেন।’

ডোনা জানিয়েছেন, তার আসল প্রোফাইলের ফলোয়ার সংখ্যা যেখানে নামমাত্র সেখানে ফেক একাউন্টের ফলোয়ার ৭০ হাজার পেরিয়ে গেছে।

সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

টানা জয়, ইতিহাস গড়ল ম্যানসিটি

চলতি মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে ম্যানচেস্টার সিটি। কোনোভাবেই থামানো যাচ্ছে তাদের। জয়ের ধারাবাহিকতায় এবার ইতিহাস গড়ল দলটি।

এভারটনকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ১০ পয়েন্টের ব্যবধানে শীর্ষস্থান মজবুত করেছে ম্যানসিটি। এই জয়ের মাধ্যমে দারুণ একটি রেকর্ড গড়েছে তারা।

ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগের ইতিহাসে প্রথম দল হিসেবে কোনও মৌসুমে প্রথম ১০ ম্যাচেই জিতল ম্যানচেস্টার সিটি। ১৯০৬ সালে বোল্টন ওয়ানডারার্স ও ২০০৯ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ৯টি করে জয় ছিল আগের রেকর্ড।

প্রতিপক্ষের মাঠে এদিন ফিল ফোডেনের গোলে এভারটন পিছিয়ে পড়ার খানিক পরেই সমতা টানেন রিশার্লিসন। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আর ফেভারিটদের আটকাতে পারেনি তারা। সিটির পরের গোল দুটি করেন রিয়াদ মাহরেজ ও বের্নার্দো সিলভা।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি, ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগের দল হিসেবে দেশটির ঘরোয়া ফুটবলে টানা সবচেয়ে বেশি ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়েছিল সিটি।

সব মিলে লিগে টানা ১২ ম্যাচ জিতল ম্যানসিটি। লিগ টেবিলের দুইয়ে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের চেয়ে এগিয়ে গেল ১০ পয়েন্টে।

ম্যাচের ৩২তম মিনিটে এগিয়ে যায় সিটি। রিয়াদ মাহরেজের ক্রস ডিফেন্ডার মাইকেল কিন হেডে ঠেকাতে গিয়ে উল্টো বল তুলে দেন ফোডেনের পায়ে। তরুণ ইংলিশ মিডফিল্ডারের শট সামনে একজনের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়।

পাঁচ মিনিট পর সমতা টানে এভারটন। লুকাস দিনিয়ের জোরালো ভলিতে বল পোস্টে লেগে গোলমুখে ছুটে যাওয়া রিশার্লিসনের গায়ে লেগে জালে জড়ায়।

ম্যাচে ৭০ শতাংশের বেশি সময় বল দখলে রাখা সিটি আক্রমণেও আধিপত্য করে। দ্বিতীয়ার্ধে তাদের তেমন কোনও পরীক্ষাতেও ফেলতে পারেনি এভারটন।

৬৩তম মিনিটে ১৮ গজ দূর থেকে বাঁকানো শটে ফের দলকে এগিয়ে নেন আলজেরিয়ার মিডফিল্ডার মাহরেজ। আর ৭৭তম মিনিটে প্রায় একই দূরত্ব থেকে দলের তৃতীয় গোলটি করেন পর্তুগিজ মিডফিল্ডার সিলভা।

২৪ ম্যাচে ১৭ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে সিটির পয়েন্ট হল ৫৬। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পয়েন্ট ৪৬।

ইউনাইটেডের সমান ৪৬ পয়েন্ট নিয়েই তিনে লেস্টার সিটি। চার নম্বরে থাকা চেলসির পয়েন্ট ৪২।

বিডি প্রতিদিন

বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন না প্রসেনজিৎ, জানালেন কারণ

ভারতের বিধানসভা নির্বাচনের বাকি আর হাতে গোনা কয়েকদিন। তার আগেই পশ্চিমবঙ্গ রাজনীতিতে পালাবদলে লেগে রয়েছে নিত্য নতুন রঙ্গ। সরস্বতী পুজার দিনে তাতে যোগ হল নতুন মাত্রা।

মঙ্গলবার টলিউডের সুপারস্টার প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জির সঙ্গে দেখা করলেন ক্ষমতাসীন দলের নেতা অনির্বাণ গাঙ্গুলি। আর তার জেরে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা। তবে কি এবার সুপারস্টারও রাজনীতির প্রাঙ্গণে নামতে চলেছেন!

এবার বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়ে মুখ খুলেছেন প্রসেনজিৎ। তিনি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন না- তার সাফ কথা এখনই রাজনীতিতে আসছেন না। তার কথায়, ‘রাজনীতিতে আসার জন্য আমার আরও ৫ বছরের প্রস্তুতি প্রয়োজন। যদি রাজনীতিতে আসতেই হয়, তাহলে আমায় এই প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য সময় দিতেই হবে।’

উল্লেখ্য, বিশেষত টলিউড মহলে তৃণমূল কংগ্রেসের একচ্ছত্র আধিপত্যে থাবা বসাতে আগে থেকেই উদ্যোগী হয়েছে বিজেপি। টলিউডের বড় বড় ‘মাথা’-রাও তালিকায় আছেন বলে খবর। একইসঙ্গে সম্প্রতি একাধিকবার বিজেপির ‘কাছাকাছি’ এসেছেন প্রসেনজিৎ।

তবে আগেও প্রকাশ্যে কখনও সক্রিয় রাজনীতিতে যোগদানের ইচ্ছা প্রকাশ করেননি। রাজনীতি থেকে বরাবর দূরে থেকেছেন এই অভিনেতা। নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বহু প্রস্তাব ফিরিয়েছেন তিনি। তবে কি এবার রাজনীতির মাঠে নামছেন প্রসেনজিৎ? সূত্র : জি নিউজ।

বিজয় দিবসে আগারগাঁও-উত্তরা রুটে মেট্রোরেল চলবে

মহান বিজয় দিবসে রাজধানীর আগারগাঁও থেকে উত্তরা রুটে চলবে মেট্রোরেল বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। আজ বুধবার নগরীর উত্তরা মেট্রোরেল ডিপো পরিদর্শনকালে তিনি এ কথা জানান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, রাজধানীর আগারগাঁও থেকে উত্তরা পর্যন্ত অংশের মোট দৈর্ঘ্য ১১ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার। এ পথে স্টেশন রয়েছে নয়টি। ১১ দশমিক চার কিলোমিটার ভায়াডাক্ট দৃশ্যমান। এ রুটে চলতি বছরে মহান বিজয় দিবসে মেট্রোরেল চলবে। আমরা আশা করছি মহান বিজয় দিবসে আগারগাঁও থেকে উত্তরা রুটে মেট্রোরেল চালু করতে পারবো। আমাদের দেশীয় ও বিদেশি এক্সপার্টরা আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। করোনার মধ্যেও সবাই কাজ করে যাচ্ছেন। মেট্রোরেল প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)।

ডিএমটিসিএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব এম এ এন সিদ্দিক বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরপূর্তি উদযাপন বর্ষের ২০২১ সালে ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশে প্রথম মেট্রোরেল আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে চলেছে প্রকল্পের কাজ। করোনা সংকট না থাকলে কাজের অগ্রগতি আরো বাড়তো।

বিডি প্রতিদিন

মিরপুরে মাদ্রাসা ক্যাম্পে আগুন

রাজধানীর মিরপুরের ১১ নম্বরে মাদ্রাসা ক্যাম্পে আগুন লেগেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট। আজ বুধবার সন্ধ্যায় এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওই ক্যাম্পে অন্তত হাজারখানেক ঘর ও দোকান রয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে আগুন লাগার কারণ, ক্ষয়-ক্ষতি কিংবা কোনো হতাহতের খবর জানা যায়নি।

ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার লিমা খানম গণমাধ্যমকে বলেন, সন্ধ্যার দিকে আগুন লাগার খবরে ওই ক্যাম্পে ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট সেখানে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করতে শুরু করে। বর্তমানে আগুন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

বিডি প্রতিদিন

মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে রাজশাহীর ১২৬ জনের বিরুদ্ধে আপত্তি

মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেটভুক্ত হওয়ার পরই সংশ্লিষ্টরা ভাতা পান। তবে গেজেট নিয়মিত করার সুপারিশ পাননি রাজশাহী মহানগর এলাকার ১২৬ জন। এদের মধ্যে ৮৪ জনের আবেদন সরাসরি নাকচ হয়েছে। ২৬ জন গেজেট নিয়মিত না করার কারণে তাদের ব্যাপারে সুপারিশ করা হয়নি। এছাড়া আটজনের ব্যাপারে দ্বিধাবিভক্ত সিদ্ধান্ত আসায় গেজেট নিয়মিত করার সুপারিশ করা হয়নি।

আর এর বাইরে আরও আটজনের ব্যাপারে অধিকতর যাচাই করে জাতীয় মুক্তিযুদ্ধ কাউন্সিলকে (জামুকা) সিদ্ধান্ত নিতে বলেছে কমিটি। বাকি ৩৪ জনকে বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেট নিয়মিত করারও সুপারিশ করা হয়েছে।
এই তালিকা বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাজশাহী জেলা প্রশাসনের ওয়েবসাইটেও দেওয়া হয়েছে।

মোট ১৬০ জনের ব্যাপারে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই কমিটি ১৬ ফেব্রুয়ারি সুপারিশসহ প্রতিবেদন জামুকায় পাঠিয়েছে। গত ৬ থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি রাজশাহীতে এই যাচাই-বাছাই শুরু হয়। চার সদস্যের মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটির সভাপতি ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান রাজা। আর সদস্য সচিব ছিলেন রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ শরিফুল হক। অন্য দুই সদস্য হলেন রাজশাহীর বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা চৌধুরী এস. মনিরুল ইসলাম।

যাচাই-বাছাই কমিটির সদস্য সচিব মুহাম্মদ শরিফুল হক বলেন, মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেটভুক্তির জন্য ৩৩ ধরনের প্রমাণ প্রয়োজন। এর মধ্যে জামুকার সুপারিশও প্রয়োজন। কিন্তু রাজশাহী মহানগরীর ৫৫২ জন ভাতাভোগীর মধ্যে ১৬০ জনের ব্যাপারে জামুকার সুপারিশ ছিল না। এ কারণে তাদের ব্যাপারে যাচাই-বাছাই করতে বলা হয়। জামুকার নির্দেশনা অনুযায়ী যাচাই-বাছাই করে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে বলেও জানান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক।

এদিকে, সরাসরি নামঞ্জুর হওয়া ১১০ জনের মধ্যে ৮৪ জন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাদের গেজেটে নিয়মিত করার জন্য আবেদন করেছিলেন। বাকি ২৬ জন আবেদনই করেননি। এমনকি যাচাই-বাছাই কমিটির সামনে তারা হাজিরও হননি। প্রতিবেদনের মন্তব্যের কলামে এ বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে। আর ৮৪ জনের আবেদন যাচাই শেষে নামঞ্জুর করা হয়েছে বলে মন্তব্যের কলামে উল্লেখ করা হয়েছে।

আবেদন না মঞ্জুর হওয়াদের মধ্যে শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নূর কুতুব আলম মান্নানের নামও আছে। ওই তালিকায় তার ক্রমিক নম্বর-৮৫। আবেদন বাতিলের তালিকায় আরও আছেন বিএনপির প্রভাবশালী নেতা কামরুল মনির, এরশাদ আলী ঈশা, নূর মোহাম্মদ পেনু, অ্যাডভোকেট অঙ্কুর সেন, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র রেজাউন নবী দুদু প্রমুখ।

আবেদন নামঞ্জুর হওয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে জাতীয় শ্রমিক লীগ সভাপতি নূর কুতুব আলম মান্নান বলেন, এতদিন পর বাতিল হয়ে গেলে কী করবেন। তিনি তো মুক্তিযুদ্ধের সময় অনেক কাজ করেছেন। ২০০৬ সালের দিকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেটভুক্ত হয়েছেন। তখন থেকেই নিয়মিত ভাতা পাচ্ছেন।

যাচাই-বাছাইকালে মহানগরীর যে আটজনের ব্যাপারে দ্বিধাবিভক্ত সিদ্ধান্ত পাওয়া গেছে তারা হলেন মৃত নজিবর রহমান, মৃত হিসাব উদ্দীন আহমেদ, রুহুল আমিন প্রামাণিক, বদরুল আলম, আবদুল আজীজ, মজিবুর রহমান, মৃত মোয়াজ্জেম হোসেন এবং সারওয়ার ই-কামাল স্বপন।

যাচাই-বাছাই কমিটির সদস্য সচিব ও রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ শরিফুল হক বুধবার রাতে বলেন, মূলত তিনি এখানে সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন। নির্বাচিত মুক্তিযোদ্ধারাই এই বিষয়টি যাচাই-বাছাই করেছেন। আপনারা সবাই তাদেরকে চেনেন এবং জানেন।

যাচাই-বাছাই শেষে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেদন জামুকায় পাঠানো হয়েছে। তাদের দায়িত্ব ছিল যাচাই-বাছাই করে এই তালিকা পাঠানো। এখন তাদের ভাতা পাওয়া বা না পাওয়া অথবা অন্য যে কোনো সিদ্ধান্ত জামুকা এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় গ্রহণ করবে। তাদের কাছে যেরকম নির্দেশনা আসবে তারা সেই রকমই পদক্ষেপ নেবেন।

বিডি প্রতিদিন

খালেদা জিয়া ও গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

নড়াইলে পৃথক দুইটি মানহানি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। আজ বুধবার (১৭ ফ্রেরুয়ারি) বিকালে নড়াইল সদর আমলী আদালতের বিচারক জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমাতুল মোর্শেদা এ আদেশ দেন।

মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বির্তকিত মন্তব্যে ও শহীদ বুদ্ধিজীবীদের নির্বোধ বলার অভিযোগে নড়াইলে দায়েরকৃত পৃথক দুইটি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে এ আদেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ঢাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের একটি সমাবেশে বেগম খালেদা জিয়া প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বির্তকিত মন্তব্য করেছিলেন। এদিকে,  ২০১৫ সালের ২৫ ডিসেম্বর স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ঢাকায় তার দলের এক আলোচনায় সভায় শহীদ বুদ্ধিজীবিদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন।

মামলার বাদী নড়াইলের কালিয়া থানার যাদবপুর গ্রামের শেখ আশিক বিল্লাহ নড়াইল জেলা আওয়ামী লীগ অফিসে বসে এ খবরটি পড়ে মারাত্মকভাবে ক্ষুদ্ধ হন। পরে শেখ আশিক বিল্লাহ বাদী হয়ে  একই বছরের ২৯ ডিসেম্বর খালেদা জিয়া ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে নড়াইল সদর আমলী আদালতে পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করেন।

বিডি প্রতিদিন

বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে সি ক্রুজ সার্ভিস চালু হতে পারে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শীত মৌসুমে বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে সি ক্রুজ সার্ভিস চালু হতে পারে।

বাংলাদেশে নবনিযুক্ত মালদ্বীপের হাইকমিশনার শিরুজিমাথ সামির আজ সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকালে তিনি এ কথা বলেন। পরে প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব হাসান জাহিদ তুষার সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের মধ্যে সি ক্রুজ চালুর সম্ভবনার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শীত মৌসুমে আমরা মালদ্বীপের সঙ্গে সি ক্রুজ চালু করতে পারি।’

গভীর সমুদ্রে মৎস্য সম্পদ আহরণে মালদ্বীপের সঙ্গে অভিজ্ঞতা ও সহযোগিতা বিনিময়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি সেখানে বসবাসরত বাংলাদেশী শ্রমিকদের করোনা টিকা দেওয়ার জন্য মালদ্বীপের প্রতি অনুরোধ জানান।

শ্রমিকরা মালদ্বীপের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন উল্লেখ করে হাইকমিশনার বলেন, তার সরকার সেখানে কর্মরত শ্রমিকদের টিকা দেওয়া শুরু করতে যাচ্ছে।

এ সময় বাংলাদেশে অবস্থানরত মালদ্বীপের নাগরিকদের কথা তুলে ধরে হাইকমিশনার বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রামসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় মালদ্বীপের শিক্ষার্থীরা মেডিকেল কলেজে পড়াশোনা করছে।
শেখ হাসিনা বলেন, আমরা প্রথমে শিক্ষকদের টিকা দিচ্ছি। পর্যায়ক্রমে শিক্ষার্থীদেরও টিকা দেওয়া হবে।

বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে তার দেশের আগ্রহের কথা জানিয়ে মালদ্বীপের হাইকমিশনার বলেন, আমরা বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য বৃদ্ধি করতে চাই।

এ প্রসঙ্গে মালদ্বীপের হাই কমিশনার বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তিতে মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতির বাংলাদেশ সফরের সময় এ বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে।

বাংলাদেশে বিনিয়োগ সম্ভবনার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ফিশারিজ ছাড়াও আমাদের কৃষি ও কৃষিজাত পণ্য, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য আছে। এগুলোর বিষয়েও মালদ্বীপের উদ্যোক্তারা বিবেচনা করতে পারে। সিরামিক, ওষুধ, তথ্য প্রযুক্তি খাতেও মালদ্বীপ বিনিয়োগ করতে পারে।

মালদ্বীপের রাজধানী মালে আইল্যান্ডের পাশে নতুন শহর গড়ে তোলা হচ্ছে জানিয়ে সেখানে বিনিয়োগ করতে বাংলাদেশকে আহ্বান জানান হাইকমিশনার।

মালদ্বীপের আরও বেশি ছাত্র-ছাত্রীকে বাংলাদেশে পড়াশোনা করতে আসার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে আমরা অনেক প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজ, মেডিকেল কলেজ, এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়, মেরিটাইম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছি। সেখানে মালদ্বীপের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করতে পারে।

এ সময় হাইকমিশনার তাদের পর্যটন থেকে শিক্ষা গ্রহণে বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের সেখানে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, মালদ্বীপ পর্যটনে ভালো। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা সেখানে পর্যটন বিষয়ে পড়াশোনা করতে যেতে পারে।

কৃষি উৎপাদনে বাংলাদেশে সফলতার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের কৃষি পণ্য আছে, কৃষি উৎপাদন দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

করোনা সংকটের সময় প্রচুর খাদ্য সহায়তা প্রদানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, করোনাকালীন সময়ে আমরা প্রচুর খাদ্য বিতরণ করেছি এবং করোনার মধ্যে কয়েক দফা বন্যা হওয়ার কারণে, আমাদের কিছুটা খাদ্য আমদানী করতে হচ্ছে।

মালদ্বীপের হাইকমিশনার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের প্রশংসা করেন।
রোহিঙ্গাদের কক্সবাজার থেকে ভাসানচরে স্থানান্তরকে ‘খুবই ভাল উদ্যোগ’ বলেও হাই কমিশনার উল্লেখ করেন।

রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা খুব অমানবিক পরিস্থিতিতে কক্সবাজারে বসবাস করছিল। সেখানে বন এবং পরিবেশ ধ্বংস হচ্ছিল। তাদের জন্য আমরা আরও ভাল ব্যবস্থা এবং আধুনিক বন্দোবস্ত করছি, আমরা পুরো এলাকাটার উন্নয়ন করবো।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূমিকা ও বিভিন্ন উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন মালদ্বীপের হাইকমিশনার।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনায় যেখানে সারা বিশ্বকে ভুগতে হয়েছে, সেখানে আমরা আমাদের সাধ্যমত চেষ্টা করেছি।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় নৌ-বাহিনীর জাহাজে ১শ’ মেট্রিক টন খাদ্য সামগ্রী, ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম মালদ্বীপে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ।

এই সহায়তার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে হাইকমিশনার বলেন, খুব কঠিন সময়ে মালদ্বীপকে অনুদান দিয়েছিল বাংলাদেশ। এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, বন্ধু প্রতিম দেশের প্রতি এটা আমাদের দায়িত্ব।

হাইকমিশনারের মাধ্যমে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টকে শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া এবং প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল নকিব আহমেদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। সূত্র: বাসস

ঝুলে গেল মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার

জনশক্তি রপ্তানির প্রক্রিয়ার বিষয়ে একমত হতে না পারায় মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার খোলার প্রক্রিয়া আরেক দফা অনিশ্চয়তায় পড়ল। কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ছাড়াই উভয় দেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক গতকাল মুলতবি হয়ে গেছে। বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার মাঝে সম্পাদিত জিটুজি প্লাস চুক্তির মেয়াদ আরও পাঁচ বছর বৃদ্ধির কথা বলা হলেও হয়নি কোনো সমঝোতা স্মারক। কোনো নতুন দিনক্ষণ নির্ধারণ ছাড়াই অনির্দিষ্টকালের এই মুলতবিতে মালয়েশিয়া জনশক্তি রপ্তানি আরেক দফায় ঝুলে গেল।

গতকাল উভয় দেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের টানা দ্বিতীয় দিনের ভার্চুয়াল বৈঠক শেষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ জানান, কয়েকটি ইস্যুতে একমত হতে পারেনি দুই দেশের কর্মকর্তারা। এজন্য দুই দেশের রাজনৈতিক নেতৃত্বের সিদ্ধান্ত জানার অপেক্ষায় আছেন তারা। তাই কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ছাড়াই উভয় দেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক মুলতবি হয়ে গেছে। শিগগিরই নতুন দিনক্ষণ নির্ধারণ করে আবার বৈঠক হবে বলে জানিয়েছে মালয়েশিয়ার পক্ষ থেকে।

বৈঠক সূত্র জানায়, মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানি সংক্রান্ত চুক্তি জিটুজি প্লাস এর মেয়াদ গতকাল শেষ হয়ে গেলে দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী উল্লিখিত চুক্তির মেয়াদ আরও পাঁচ বছর বাড়াতে মৌখিক সম্মতির কথা জানান। কিন্তু এ বিষয়ে বাংলাদেশের প্রস্তাবনার বিপরীতে মালয়েশিয়ার সঙ্গে এমওইউ হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। কারণ বৈঠকে মালয়েশিয়ার পক্ষ থেকে নিয়োগ প্রক্রিয়ার বিষয়ে যে প্রস্তাবনা দেওয়া হয় সে বিষয়ে শেষ মুহূর্তে আপত্তি তোলেন বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ সচিব। মালয়েশিয়া দুই দেশে ২৫টি করে রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়ার কথা প্রস্তাব করে। এতে বাংলাদেশের ২৫ এজেন্সির আওতায় ১০টি করে ২৫০ এজেন্সির নিয়োগের সুযোগ রাখার কথা বলা হয়। মালয়েশিয়ায় সেদেশের ২৫টি এজেন্সিই কাজ করার কথা বলা হয়। এ বিষয়ে সবকিছু চূড়ান্ত হতে যাওয়ার প্রক্রিয়ার মধ্যে মালয়েশিয়ায় সেদেশের এজেন্সি সংখ্যা বাড়ানোর বিষয়ে আবেদন তোলেন বাংলাদেশি কর্মকর্তা। মালয়েশিয়া তার নিজের দেশের সংখ্যা বাড়াবে কিনা এজন্য নিজেদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের প্রয়োজনীয়তার কথা বলে। শেষ মুহূর্তের এই আপত্তি অনিশ্চিত করে তোলে সম্ভাবনার শ্রমবাজারকে।

জানা যায়, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার চালু করতে দুই দেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের ভার্চুয়াল বৈঠক শুরু হয় গত মঙ্গলবার। গতকাল উভয় দেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের টানা দ্বিতীয় দিনের ভার্চুয়াল বৈঠক হয়। এতে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমদ এবং মালয়েশিয়া মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানানসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা স্ব স্ব দেশ থেকে ভার্চুয়াল বৈঠকে অংশ নেন। যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মনিরুছ সালেহীন, বিএমইটির মহাপরিচালক শামসুল আলম, বোয়েসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সাইফুল হাসান বাদল ও মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।