এক কেজি চা পাতার দাম ৫ হাজার ১০ টাকা!

এক কেজি চা পাতার দাম ৫ হাজার ১০ টাকা। এ দাম শুনে যে কেউ অবাক হতে পারেন। কিন্তু না অবাক হওয়ার কিছু নেই, এটি আসলেই সত্য। আজ বুধবার মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে দেশে দ্বিতীয় চা নিলাম কেন্দ্রে ১৭তম নিলামে এক কেজি হোয়াইট টি বিক্রি হয়েছে ৫ হাজার ১০ টাকায়। নিলামে তোলা হয়েছিল মোট তিন কেজি চা। আর নিলাম থেকে এই চা কিনে নেয় সেলিম টি হাউজ।

নিলাম কেন্দ্রে থেকে জানা যায়, এবারই প্রথম শ্রীমঙ্গল নিলাম কেন্দ্রে হোয়াইট টি অফারিং করা হয়েছে। শ্রীমঙ্গল টি ব্রোকার লি. এই হোয়াইটটি নিলামে তুলে। এটি ছিল বৃন্দাবন চা বাগানের চা।
শ্রীমঙ্গল টি ব্রোকার লি. এর এমডি হেলাল আহম্মদ বলেন, আমরা মাত্র তিন কেজি হোয়াইট টি পেয়েছিলাম। এতো দামে বিক্রি হবে তা আগে ভাবতে পারিনি। এই দাম পেয়ে আমি খুশি।

সেলিম টি হাউজ’র এর মালিক সেলিম আহম্মেদ বলেন, বাজারে হোয়াইট টি’র চাহিদা রয়েছে। তাই আমরা এতো বেশি দাম দিয়ে এই চা কিনেছি।

বৃন্দাবন চা বাগানের  ব্যবস্থাপক মো.নাসির উদ্দিন খান বলেন, আসলে ভারতে মনোহরী টি কোম্পানী পরীক্ষামূলক এক কেজি হোয়াইট টি উৎপাদন করেছিল। সেই চা নিলাম থেকে টাটা কোম্পানী কিনেছিল ৭০ হাজার রুপি দিয়ে। তাদেরটা দেখে আমিও বাগানে আট কেজি হোয়াইট উৎপাদন করি। শ্রীমঙ্গল নিলামে ৩ কেজি চা বিক্রি হয়েছে ৫০ হাজার ১০ টাকা কেজি করে। এর আগে চট্টগ্রামে ৩৪তম নিলামে ৫ কেজি হোয়াইট টি বিক্রি হয়েছিল ৪ হাজার ৩০০ টাকা কেজি করে। তবে বাংলাদেশ এক সময় এই চায়ের দাম আরো অনেক বেশি পাওয়া যাবে বলে তিনি আশাবাদী।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

ফের করোনার কবলে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, থমকে গেল সকল প্রস্তুতি

ফের করোনার হানা অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে। আগামী সোমবার থেকে শুরু হতে চলেছে বহু প্রতিক্ষীত এই টেনিস টুর্নামেন্ট। করোনা পরবর্তীকালে এটিই প্রথম বড় টেনিসের আসর বসতে চলেছে। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছিল যাবতীয় প্রস্তুতি। খেলোয়াড়রা নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচও খেলতে শুরু করে দিয়েছিলেন। কিন্তু আপাতত সবই থমকে গেছে। হোটেলে খেলোয়াড়দের কোয়ারেন্টাইনের দিকে খেয়াল রাখা এক কর্মী নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এরপর সকল খেলোয়াড় ও সাপোর্ট স্টাফদের ফের একবার আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

তবে টেনিস অস্ট্রেলিয়ার এক কর্মকর্তা ক্রেগ টিলে অবশ্য বলেছেন, সূচী অনুযায়ীই অস্ট্রেলিয়ান ওপেন শুরু হবে। তিনি জানান, আমরা একদমই নিশ্চিত যে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন শুরু হবে। সোমবার দিনই সুচনা হবে এই টুর্নামেন্টের। তবে একইসঙ্গে তিনি আরও জানান, ঐ হোটেলে থাকা সব খেলোয়াড়দের ও সাপোর্ট স্টাফদের ফের করোনা পরীক্ষা হবে এবং বৃহস্পতিবারের মধ্যেই এই কাজ সম্পূর্ণ করা হবে।

অস্ট্রেলিয়ার স্বাস্থ্য কর্মকর্তারাও জানিয়েছেন, খেলোয়াড়রা ও সাপোর্ট স্টাফদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় নেই। তবে করোনা পরীক্ষার পরেই নিশ্চিত হওয়া যাবে। তবে এই ঘটনার কারণে মেলবোর্ন পার্কে পাঁচটি এটিপি ও ডব্লিউটিএ টুর্নামেন্টগুলি স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। খেলোয়াড়দের কোয়ারেন্টাইন ও প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ দেওয়ার জন্য ইতিমধ্যেই তিন সপ্তাহ পিছিয়ে গেছে অস্ট্রেলিয়া ওপেন।

আফরান নিশোর গল্পের নায়িকা মেহজাবীন

সময়ের অন্যতম ভার্সেটাইল অভিনেতা আফরান নিশোর গল্প অবলম্বনে নাটক নির্মাণ করলেন মিজানুর রহমান আরিয়ান। সিএমভি’র ব্যানারে সদ্য নির্মিত এই নাটকটির নাম ‘কাজলরেখা’।

আফরান নিশোর গল্প ভাবনা থেকে চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন পান্থ শাহরিয়ার। নাটকটির প্রধান দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো আর মেহজাবীন চৌধুরী। এর মধ্যে ‘কাজল’ চরিত্রে নিশো এবং ‘রেখা’ চরিত্রে দেখা যাবে মেহজাবীনকে।

আরিয়ান বললেন, “একটা মফস্বল শহরের দু’জন ছেলে-মেয়ের সহজ-সরল প্রেমের গল্প এটি। বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের বিশেষ নাটক হিসেবে নির্মাণ করেছি। আমি সাধারণত যে ধরণের প্রেমের গল্প বলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি, এটাও তেমনই। এর মধ্যে কিছু চমক বা বৈচিত্র্যতো থাকছেই। সেটি নাটকটি উন্মুক্ত হলে দর্শকরা দেখতে পাবেন।’

এছাড়াও বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন শামীমা নাজনীন, ইন্তেখাব দিনার, শাহেদ আলী সুজন প্রমুখ। নাটকটির প্রযোজক এসকে সাহেদ আলী পাপ্পু জানান, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসকে (১৪ ফেব্রুয়ারি) লক্ষ্য করে দ্রুতই এটি উন্মুক্ত হবে সিএমভি’র ইউটিউব চ্যানেলে।

বিডি-প্রতিদিন

বেরিয়ে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য, সুশান্তকে মাদক সরবরাহ করত এই লোক!

গ্রেফতারকৃত পরিচালকের নাম ঋষিকেশ পাওয়ার। তার বিরুদ্ধে এনসিবির অভিযোগ, সুশান্তকে মাদক সরবরাহ করতেন তিনি। আর সেই অভিযোগেই মঙ্গলবার ঋষিকেশ পাওয়ারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সুশান্তের সঙ্গে বেশ কিছু ছবিতে কাজ করেছেন ঋষিকেশ। তিনি পেশায় সহকারী-পরিচালক। বেশ কিছুদিন ধরেই নাকি তার ওপর নজর রাখছিলেন এনসিবির কর্মকর্তারা। এর আগে একাধিকবার ঋষিকেশকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সমনও পাঠানো হয়েছিল। সেই প্রেক্ষিতে অগ্রিম জামিনের আবেদনও করেছিলেন সুশান্ত-ঘনিষ্ঠ এই বলিউড পরিচালক। কিন্তু আদালতের কাছে সেই আবেদন ধোপে টেকেনি!

মঙ্গলবার ঋষিকেশ পাওয়ারকে ফের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠানো হয় নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর পক্ষ থেকে। জিজ্ঞাসাবাদের সময় তার উত্তরে সন্তুষ্ট হননি এনসিবির কর্মকর্তারা। কথাবার্তায় অসঙ্গতি মেলার কারণেই এদিন সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই ঋষিকেশের ব্যবহৃত ল্যাপটপ ও মোবাইল বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

তদন্তকারী অফিসারদের সন্দেহ, ঋষিকেশ শুধু সুশান্তকে নিষিদ্ধ মাদকই সরবরাহ করতেন না, তার পাশাপাশি তাকে নানা ধরনের নেশা করার প্রলোভনও দেখাতেন।

বিডি প্রতিদিন

তাপসী পান্নুকে ‘‌বি গ্রেড’ তকমা দিলেন কঙ্গনা

ভারতের কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন বিদেশিরা। মার্কিন পপস্টার রিহানা, পরিবেশ কর্মী গ্রেটা থুনবার্গ, সাবেক পর্নস্টার মিয়া খলিফারা কৃষক বিক্ষোভের পাশে দাঁড়িয়ে টুইট করেছেন। যা ভাল চোখে নেয়নি ভারতের বিদেশ মন্ত্রাণালয়। টুইট করে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে, ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিদেশিদের নাক গলানো কোনওভাবেই সহ্য করা হবে না।

এমনকি বিভিন্ন জগতের তারকারাও এই ইস্যুতে ভাড়োট সরকারের পাশে দাঁড়িয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে বলিউড অভিনেতা তাপসী পান্নুর গলায় সরকার বিরোধী সুর। তার একটি টুইটে শোরগোল পড়ে গেছে। তিনি সরকারকে সমর্থন করা তারকাদের উদ্দেশে বলেছেন, ‌”যদি একটি টুইট আপনার একতাকে নষ্ট করে দেয়। বা কোনও রসিকতা বিশ্বাসকে নষ্ট করতে উদ্যত হয়। বা কোনও অনুষ্ঠান আপনার ধর্মীয় বিশ্বাসকে ঝাঁকুনি দেয়, তাহলে বুঝতে হবে আপনার মূল্যবোধ দুর্বল। তা আরও মজবুত করতে হবে। অপরের জন্য প্রচারের শিক্ষক হয়ে উঠবেন না।‌”

এই টুইটের পরেই বিতর্ক ফের জোরদার হয়েছে। তাপসীকে জবাব দিতে মাঠে নেমে পড়তে বিলম্ব করেননি কঙ্গনা রানাওয়াত। তিনি বলেন, “‌বি গ্রেড লোকেদের বি গ্রেড চিন্তাভাবনা। মাতৃভূমি এবং পরিবারের পাশে দাঁড়ানো উচিত। এটাই কর্ম। এটাই ধর্ম। ফ্রিতে প্রচার পাওয়া বন্ধ করো। এই দেশের বোঝা তোমরা। এই কারণেই এদের বি গ্রেড বলি। এদের উপেক্ষা করা উচিত।” উল্লেখ্য, এর একদিন আগে কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করে টুইট করায় মার্কিন পপস্টার রিহানার সমালোচনা করেছিলেন কঙ্গনা।

সিংড়ায় নকল স্বর্ণমূর্তি উদ্ধার, নারীসহ গ্রেফতার ৩

নাটোরের সিংড়া উপজেলার পিপুলসন গুচ্ছ গ্রাম থেকে নকল স্বর্ণের ৭টি মূর্তি উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১২। সেইসঙ্গে প্রতারণা চক্রের এক নারীসহ ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতাররা হলেন শাহীন আলী (৩৩), রাশেদুল ইসলাম (২৬) ও সুফিয়া বেগম (৫২)।

সিরাজগঞ্জ জেলার সলঙ্গা থানার হাটিকুমরুল এলাকার র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-১২ এর স্পেশাল কোম্পানির ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার মুহাম্মদ মহিউদ্দিন মিরাজ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মহিউদ্দিন মিরাজ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাতে ওই এলাকায় অভিযান চালায় র‌্যাব-১২ এর একটি চৌকস দল। তখন পিপুলসন গুচ্ছ গ্রাম হতে নকল মূর্তি বেচা-কেনা প্রতারক চক্রের ওই ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ৭টি নকল মূর্তি, স্বাক্ষর করা স্ট্যাম্প, ৩টি চাকু, ১টি চাপাতি এবং ১ টাকা মূল্যের ৪৭০টি কয়েন উদ্ধার করা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, তারা ব্রোঞ্জের মূর্তির নির্দিষ্ট অংশে সামান্য স্বর্ণের প্রলেপ দিয়ে সেই অংশ ভেঙে প্রতারিত ব্যক্তিকে তা পরীক্ষা করার জন্য দিত। এ পর্যায়ে প্রতারিত ব্যক্তি সম্পূর্ণভাবে প্রতারকের ফাঁদে পা দিত। মোটা অংকের টাকা নিয়ে যখন প্রতারকের বাসায় স্বর্ণের মূর্তি কিনতে যেত তখন প্রতারকরা প্রতারিত ব্যক্তিকে দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ফাঁকা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে রাখত এবং টাকা আত্মসাৎ করে ছেড়ে দিত।

বিডি প্রতিদিন

গৃহবধূকে কুপিয়ে ও হাতের রগ কেটে হত্যা

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে এক নারীকে কুপিয়ে ও হাতের রগ কেটে হত্যা করেছে তার স্বামী সুমন (২৮)। নিহত নারীর নাম জোসনা আক্তার (২৫)। তিনি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের একটি কারখানায় কাজ করতেন।মঙ্গলবার রাতে তেঘরিয়া এলাকার পশ্চিমদি গ্রামের মোল্লাবাড়িতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত জোসনার ৬ বছরের লামিয়া ও সাড়ে ৩ বছরের সামিয়া নামের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

খবর পেয়ে বুধবার সকালে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরে সুরতহাল রিপোর্ট শেষে লাশ উদ্ধার করে মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

ঘটনাস্থলে গেলে নিহত জোসনার বাবা জাফর হাওলাদার জানান, ১৩ বছর পূর্বে জোসনা আক্তারের সাথে ঝালকাঠির নলসিটি রায়পুরের বাসিন্দা জহুর আলীর ছেলে সুমনের সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর জানতে পারি সে নেশা করে। বিয়ের পর থেকে সে সুমন জোসনাকে মারধর করে। মারধরের ব্যাপারে এলাকায় একাধিকবার পঞ্চায়েত সালিশ করেছে, ঠিকভাবে সংসারের খরচ দেয়নি। তাই আমার ভাড়া বাসার পাশের বাড়িতে ওদের বাসা ভাড়া করে দেই। সুমন বিভিন্ন সময় আমার মেয়েকে নানানভাবে যৌতুকের জন্য চাপ প্রয়োগ করে আসছিলো। আমি রিকশা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। তারপরও যখন যেভাবে পারছি সাহায্য করছি। সকালে (বুধবার) খবর পাই গতকাল (মঙ্গলবার) রাতে আমার মেয়েকে সুমন মারধোর করছে। সকালে মেয়ের বাসায় যাবার পথে আমাকে সুমন কাঠের (রুয়া) শক্ত লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে। সাথে সাথে আমি মাটিতে পড়ে যাই। এই সুযোগে সুমন মেয়ে দুটিকে নিয়ে আমার অটোরিকশা নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে জানতে পারি সে আমার মেয়েকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। আমি আমার মেয়ের হত্যাকারীর ফাঁসি চাই।

নিহত জোসনার ছোট বোন হোসনা বেগম জানান, সকালে ঘরে ঢুকে দেখি আমার বোনকে সুমন নির্মমভাবে হত্যা করেছে। সে আমার বোনের পেট কেটে ফেলেছে। হাতের রগ কেটেছে। পিঠে চাকু মেরেছে। আমার বোনের হত্যাকারীর কঠিন বিচার চাই।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া পশ্চিমদি এলাকায় খুনের ঘটনা ঘটেছে। এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে জানতে পারি সুমন তার স্ত্রী জোসনাকে হত্যা হয়েছে। লাশের হাতে ও নিম্নাঙ্গে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। লাশ মর্গে প্রেরণ করেছি। তবে এ ঘটনায় এখনো কোন মামলা হয়নি। তবে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডি প্রতিদিন

চলচ্চিত্রে পুলিশকে শৈল্পিকভাবে তুলে ধরুন : ডিএমপি কমিশনার

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম চলচ্চিত্রে পুলিশের কার্যক্রমকে শৈল্পিকভাবে তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, ‌‌‘চলচ্চিত্র দেখে মানুষের মনে যেন পুলিশ সম্পর্কে বিরূপ ধারণার সৃষ্টি না হয়। পুলিশের বাস্তবসম্মত কাজের চিত্র দর্শকের সামনে সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলবেন। সমাজ পরিবর্তনে পুলিশ যে ভূমিকা রাখছে তা চলচ্চিত্রে চিত্রায়নের মাধ্যমে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে।’

আজ বুধবার ডিএমপি সদর দপ্তরে চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক ও শিল্পী গোষ্ঠীর নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এই ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, ‘স্বাধীনতা যুদ্ধে পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ যুদ্ধ শুরু করেছিল পুলিশ। ওই যুদ্ধে পুলিশের অনেক সদস্য দেশপ্রেমের টানে শাহাদাত বরণ করেন। পুলিশের এই আত্মত্যাগের চিত্র চলচ্চিত্রে উপস্থাপন করা হয় না, ফলে বিষয়টি জনগনের কাছে সঠিকভাবে পৌঁছায়নি। এই বিষয়গুলো চলচ্চিত্রের মাধ্যমে জনগণের কাছে তুলে ধরুন।

‘নবাব এলএলবি’ সিনেমার ভাইরাল ভিডিও সম্পর্কে তিনি বলেন, ভিডিওতে পুলিশের কার্যক্রমকে যেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে তা বাস্তবসম্মত নয়। ওই ভিডিওচিত্রে পুলিশের কার্যক্রম দেখলে থানায় পুলিশের কাছে সহায়তার জন্য যেতে নিরুৎসাহিত হবেন নারীরা। প্রতিটি থানায় নির্যাতনের শিকার নারীদের জন্য নারী সহায়তা ডেস্ক রয়েছে। সেখানে ২৪ ঘণ্টা পুলিশের নারী সদস্যরা সেবা দেন। চলচ্চিত্রের মাধ্যমে সমাজকে যে সংবাদটি দিচ্ছেন তা সমাজের কাছে গ্রহণযোগ্য হতে হবে। হিংস্র বা অবাস্তব কোনো বিষয় উপস্থাপন থেকে বিরত থাকুন। এ ধরণের বিষয় সমাজকে কলুষিত করে।

কমিশনার আরও বলেন, আপনি যখন রাতে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে নিরাপদে ঘুমাচ্ছেন তখন আমরা সংসার পরিজন ছেড়ে আপনাদের নিরাপত্তা দিতে নিরলসভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছি। রমজানে আপনারা যখন পরিবারের সঙ্গে ইফতার করার জন্য বাসার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন, তখন আমরা রাস্তায় আপনাদের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে কাজ করি। আর এ কাজ করতে গিয়ে আমাদের রাস্তায় দাঁড়িয়ে ইফতার করতে হয়। মনে রাখবেন, যে কোনো দুর্দিনে আমরা সর্বদা আপনাদের পাশে আছি। আমরা কখনো চাই না আপনারা ভয়-ভীতি নিয়ে কাজ করেন। সবসময় সত্য প্রচারে নির্ভয় থাকবেন আপনারা।

সভায় ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (সিটিটিসি) মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত কমিশনার (অ্যাডমিন) মীর রেজাউল আলম, অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস্‌) কৃষ্ণপদ রায়, অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার ও অতিরিক্ত কশিনার (ট্রাফিক) মুনিবুর রহমানসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম খোকন, সালাউদ্দিন লাভলু, ইরেশ জাকের, তানভীন সুইটি, তানিয়া আহম্মেদ, মুনিরা ইউসুফ মেমী প্রমুখ।

সূত্র : ডিএমপি নিউজ।

 

সাভারে স্কুলছাত্রী নীলা হত্যা : কিশোর গ্যাং লিডার সাকিব গ্রেফতার

চাঞ্চল্যকর নীলা রায় হত্যা মামলায় কিশোর গ্যাং লিডার মো. সাকিব হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সে হত্যা মামলার অন্যতম আসামি। গত মধ্যরাতে সাভার পৌরসভার মধ্যপাড়া এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ নিয়ে মামলার প্রধান আসামি মিজানুর রহমানসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ।

গ্রেফতার সাকিব হোসেন সাভার পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম শিরুর ছেলে। হত্যাকাণ্ডের পর সাকিব ও তার ভাই শাকিলের বিরুদ্ধে কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণ, মাদক ও ইভটিজিংসহ নানা অভিযোগ ওঠে।

সাভার মডেল থানার পরিদর্শক নির্মল কুমার দাস বলেন, মামলার তদন্তে হত্যাকাণ্ডে সাকিবের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। ঘটনার পর থেকেই সাকিব গা ঢাকা দিয়েছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত রাতে অভিযান চালিয়ে তাকে তার বাসা থেকে আটক করা হয়।

পুলিশ কর্মকর্তা নির্মল কুমার দাস বাংলাদেশ প্রতিদিনেক বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের বাবা নারায়ণ রায় বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেছিলেন। মামলায় মিজানুর রহমানকে প্রধান করে তিনজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৩/৪ জনকে আসামি করা হয়। মামলায় এ পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে প্রধান আসামি মিজানুর, তার বাবা-মা, সহযোগী সেলিম ও সাকিব।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা গেছে, গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় হাসপাতাল থেকে ফেরার পথে স্কুলছাত্রী নীলা রায়কে তার ভাইয়ের কাছে থেকে কৌশলে আড়ালে ডেকে নিয়ে যায় প্রেমিক মিজানুর। পরে পৌরসভার দক্ষিণপাড়া এলাকায় নিয়ে গিয়ে নীলাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় সে। গুরুতর জখম অবস্থায় ওই ছাত্রীকে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নীলাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিডি প্রতিদিন

স্থানীয় সরকার নির্বাচন: ইসি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ফল পাল্টে দেয়ার অভিযোগ

পৌরসভার পর চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন। স্থানীয় সরকার নির্বাচনের সাম্প্রতিক ভোটগুলোতে বাড়ছে অনিয়মের অভিযোগ। কোথাও কোথাও খোদ ইসি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে উঠেছে ফল পাল্টে দেয়ার অভিযোগও। এ ঘটনায় বিব্রত নির্বাচন কমিশনও। তবে পৌর নির্বাচনের অনিয়মের তদন্ত করলেও গেজেট প্রকাশ হওয়ায় চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের তদন্ত করবে না কমিশন।

গত ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়ে পৌরসভার তিন দফার ভোট শেষ হয়েছে এরইমধ্যে। ব্যালটের পাশাপাশি অনেক পৌরসভায় ভোট হয়েছে ইভিএম পদ্ধতিতে। তবে গত ৩০ ডিসেম্বর তৃতীয় দফা পৌর নির্বাচনে ৬২ পৌরসভায় ভোট হয় ব্যালট পেপারে। ফলাফলে দেখা গেছে, প্রথম দুই দফার ভোটের চাইতে তৃতীয় দফার ব্যালটের ভোটে ভোটের হার প্রায় ১০ শতাংশ বেশি। সেই সাথে অনিয়ম কারচুপির অভিযোগও ছিলো বেশ কিছু জায়গায়।

গত ২৭ জানুয়ারি সম্পূর্ণ ইভিএমে অনুষ্ঠিত হয় চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন। সেদিন পাহাড়তলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ কেন্দ্রের ভোট শেষে কেন্দ্র থেকে কাউন্সিলর প্রার্থীদের যে ফলাফল দেয়া হয়, তাতে দেখা যায় ঐ কেন্দ্রের ভোট মাত্র ২৫৯। পরে জিমনেসিয়াম ঘোষিত ফলাফলে দেখা যায় ঐ কেন্দ্রের ভোটার উপস্থিতি ২০৯০। একইরকম চিত্র দেখা গেছে আরো কয়েকটি কেন্দ্রে। শুধু তাই না, চুড়ান্ত ফলাফলও পরিবর্তন হয়েছে দু বার। প্রায় পাঁচ হাজার ভোট বাড়িয়ে ফলাফল ঘোষণার দু দিন পরে তা কমানো হয়েছে। এ সব ঘটনায় ইসির কর্মকর্তাদের নাম উঠে এসেছে।

নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলছেন, কয়েকটি পৌরসভার ভোটে অনিয়মের অভিযোগে শিগগিরই তদন্ত শুরু হবে। তবে গেজেট হওয়ায় চট্টগ্রাম সিটির ফলাফল তদন্তের সুযোগ নেই। শুধুমাত্র যেসব পৌরসভায় অনিয়মের অভিযোগ ছিলো তার তদন্ত হবে।

 

বিডি-প্রতিদিন