একজনের জন্য পরিবারের মুখে চুনকালি মাখতে দিবো না: ডিআইজি হাবিব

ঢাকা রেঞ্জ ডিআইজি হাবিবুর রহমান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ আমি মনে করি একটি পরিবার। এই পরিবারের একজনের জন্য পুরো পরিবারের মুখে চুনকালি মাখতে দিবো না। কেউ অন্যায় করলে তাকে সংশোধনের দায়িত্ব পুলিশের। তাই আপনারা সকলেই নিজেদের এমনভাবে গড়ে তুলবেন যাতে আপনাদের থেকে অন্যরা শিখতে পারে। আপনি পুলিশ অফিসার অন্য ৫-৮ জনের চেয়ে উন্নত। তাই কোন ব্যক্তিগত লোভে জীবন জলাঞ্জলি দিবেন না, সবাই নিজেকে এমনভাবে তুলে ধরবেন যাতে গর্বের সাথে বলতে পারেন নারায়ণগঞ্জ পুলিশে চাকরি করি।

সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ লাইনসে বিশেষ কল্যাণ সভা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
সভা শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ডিআইজি হাবিবুর রহমান আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জেলা। এখানে অপরাধের ধরণ ভিন্ন প্রকৃতির। নারায়ণগঞ্জ আলোচিত জেলা, গত ১ বছরে ব্যাপক উত্তরণ ঘটেছে। অপরাধের যে কোন দিকেই যান না কেন, সবক্ষেত্রেই ইতিবাচক পরিবর্তন এসেছে। পুলিশ অত্যন্ত মানবিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে, এ এলাকার তা জনগণ জানে। অপরাধীরা নতুন বার্তা পেয়েছে যে, তাদের আগের মতো দিন নেই। সে কারণে একেবারেই নিয়ন্ত্রণে নারায়ণগঞ্জ। পুলিশ বর্তমানে স্ট্যার্ডাড অবস্থানে রয়েছে। করোনাযুদ্ধে বাংলাদেশ পুলিশ অন্যান্য সকল ডিপার্টমেন্টের চেয়ে এগিয়ে ছিল।

অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) টি.এম.মোশাররফ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) শফিউল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) জাহেদ পারভেজ চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) সুভাষ চন্দ্র দাস, সহকারি পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) সালেহ উদ্দিন আহমেদ, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আসাদুজ্জামান, ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আসলাম, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) কামরুল ফারুক, বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফখরুদ্দিন, সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) রফিকুল ইসলাম, সকল থানার তদন্ত ও ট্রাফিকের এসআই কর্মকর্তারাসহ জেলা পুলিশের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বিডি প্রতিদিন

কোমল পানীয়তে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে ফুপাতো বোনকে ধর্ষণ

নারায়ণগঞ্জে নানীর বাড়িতে বেড়াতে আসা ফুপাতো বোনকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে মামাতো ভাইয়ের বিরুদ্ধে। কোমল পানীয়তে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে তা নানী ও ফুপাতো বোনকে পান করানোর পর এই ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। অভিযুক্ত মামাতো ভাইয়ের নাম মো. জাহিদ (২১)।

এই ধর্ষণের ঘটনার বর্ণনা আজ সোমবার দুপুরে আদালতে দেন ১৪ বছর বয়সী ওই কিশোরী। নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিদা খাতুন সেই জবানবন্দি ২২ ধারায় রেকর্ড করেন।

অভিযুক্ত জাহিদ বন্দরের নবীগঞ্জ বড়বাড়ি এলাকার রুহুল আমিনের ছেলে। এ ঘটনায় সহযোগিতা করেন জাহিদের ছোট ভাই আসিফ ও তাদের খালাতো ভাই রোহান।

করোনার কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় গত ১৮ সেপ্টেম্বর বন্দরের নবীগঞ্জ এলাকায় নানীর বাড়িতে বেড়াতে যায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই কিশোরী। গত ৩ অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় মামাতো ভাই মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন।

এরপর গত ৪ অক্টোবর ওই তিনজনকে আসামি করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্ষণ ও ধর্ষণে  সহযোগিতার অভিযোগে একটি মামলা করেন মেয়েটির মা।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ‘অনেক দিন ধরেই আসামি জাহিদ আমার মেয়েকে খারাপ কাজের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। আমার মেয়ে রাজি না হওয়ায় গত ৩ অক্টোবর আমার মা ও আমার মেয়েকে ঘুমের ওষুধ মেশানো …(কোমল পানীয়) পান করায় তিনজন। অচেতন হয়ে পড়তেই পাশের রুমে নিয়ে আমার মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে জাহিদ। আর আসিফ ও রোহান আমার মেয়ের হাত ধরে রাখে। এই সময় আমার মেয়ের ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশী রমজান ও রহমান নামের দুজন লোক এগিয়ে এলে আসামিরা দৌড়ে পালিয়ে যায়।’

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বন্দর থানার সাব-ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) মোদাচ্ছের হোসেন জানান, মামলা গ্রহণ করে মেয়েটির ২২ ধারায় জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত আসামিদের দুজন মেয়েটির মামাতো ভাই। আরেকজন মামাতো ভাইয়ের বন্ধু। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বিডি প্রতিদিন

ফতুল্লা বিসিক শিল্পনগরী
তৈরি পোশাক শিল্পে ৪ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা বিসিক শিল্পনগরীতে চলতি বছরের মার্চ, এপ্রিল, মে এ তিন মাসে করোনার কবলে পড়ে লোকসান সামাল দিতে না পেরে ২৫-৩০টি শিল্প-কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। একই কারণে শিল্পনগরীটিতে তৈরি পোশাক শিল্পে ৪ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন শিল্প মালিকরা।

শিল্প মালিকরা বলছেন, এ পরিস্থিতিতে বিসিক শিল্পনগরীতে অবস্থিত প্রায় ৬৫৯টি শিল্প-কাখানার মধ্যে গুটিকয়েক কারখানা ছাড়া বাকি সব কারখানা চলেছে জোড়াতালি দিয়ে। অন্য বছরের তুলনায় ক্রয়াদেশ কমেছে প্রায় ৪০ শতাংশ। আবার যেসব ক্রেতা ক্রয়াদেশ দিচ্ছে, তার পেমেন্ট ১৯০ দিন পর পরিশোধ করা হবে এমন শর্তে কাজ দেয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় মালিকরা এ শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে ও লোকসানের পরিমাণ কমাতে এবং ব্যাংকঋণের কিস্তি পরিশোধ করার জন্য ক্রেতাদের দেয়া শর্ত মেনেই উৎপাদন অব্যাহত রেখেছেন।

বিসিক শিল্পনগরী সূত্রে জানা যায়, ১৯৮৭-৮৮ সালে ৫৮ দশমিক ৫২ একর জমিতে গড়ে তোলা হয় বিসিক শিল্পনগরী। প্রথমে এটি হোসিয়ারি পল্লী হিসেবে গড়ে উঠলেও কালের পরিক্রমায় এটি পরিপূর্ণ গার্মেন্টস পল্লী হিসেবে রূপ নেয়। বিসিকে টি-শার্ট, পলো শার্ট, নিট ফ্যাব্রিকস, গার্মেন্ট, নিটিং, ফিনিশিং, কালার, ডায়িংসহ বিভিন্ন কারখানা রয়েছে। রফতানিমুখী শিল্প ইউনিট রয়েছে ৩০৮টি। শিল্প ইউনিটে মোট বিনিয়োগ করা হয়েছে ৪ হাজার ৭৫৯ কোটি ৪১ লাখ টাকা। আর বিসিক থেকে সরকার প্রতি বছর ১ হাজার ৫৭১ কোটি ২২ লাখ টাকা রাজস্ব পায়।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ বিকেএমইএর ভাইস প্রেসিডেন্ট ও বিসিক শিল্পনগরী মালিক সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ ক্রেতা দেশগুলো তাদের বিজনেস কমিটমেন্ট রক্ষা করছে না। বাংলাদেশসহ বিশ্ব কভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার আগে আমাদের নানা শর্ত দিয়ে কমপ্লায়েন্সসহ শ্রমিক নিরাপত্তা, কর্মপরিবেশ, অবকাঠামো উন্নয়নসহ নানা বিষয়ে বাস্তবায়ন করতে বাধ্য করেছে তারা। সরকারসহ ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোকে চাপ দিয়ে করিয়েছে। গার্মেন্টস মালিকসহ গার্মেন্টসংশ্লিষ্ট কারখানাগুলো তাদের চাহিদা মোতাবেক কোম্পানিকে কমপ্লায়েন্স বা অবকাঠামো উন্নয়ন করতে গিয়ে প্রতিটি কারখানার মালিক ব্যাংক থেকে মোটা অংকের লোন নিয়ে তা বাস্তবায়ন করেছেন। কিন্তু কভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার পর সেসব বায়ার একের পর এক অর্ডার বাতিল করে দিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, পরবর্তী সময়ে আমাদের দেন-দরবারের কারণে যে পণ্যগুলো আমরা কভিডের আগে উৎপাদন করেছিলাম, সেসব পণ্য তারা নিয়েছে ১৯০ দিন পর পেমেন্ট পরিশোধ করবে এ শর্তে। অন্যদিকে এখন বাংলাদেশে যেসব বায়ার অর্ডার দিচ্ছেন, তা আগের দামের চেয়ে ১০-১৫ শতাংশ কম রেটে। আবার শর্ত জুড়ে দিয়েছেন এসব অর্ডারের পেমেন্ট পরিশোধ করা হবে ১৯০ দিন পর। বায়ারদের ইচ্ছামাফিক আমরা বাধ্য হচ্ছি কারখানা চালু রাখতে।

ফতুল্লা বিসিকের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আশিকুর রহমান জানান, নারায়ণগঞ্জ বিসিক থেকে প্রতি বছর প্রায় ১৭ হাজার ৯৬২ কোটি ৬১ লাখ টাকার পণ্য উৎপাদন ও বিপণন হয়। তার মধ্যে রফতানি হয় ১৬ হাজার ৬৩৮ কোটি ৮১ লাখ টাকার পণ্য। স্থানীয় বাজারে বিক্রি হয় ১ হাজার ৩২৩ কোটি ৮০ লাখ টাকার পণ্য। সে হিসাবে গত তিন মাসে বিসিক শিল্পনগরীতে প্রায় ২৫-৩০ ভাগ উৎপাদন কম হয়েছে।

কাশ্মীরে গেরিলা হামলায় সিআরপিএফের ২ জওয়ান নিহত, আহত ৩

জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফের উপরে গেরিলা হমালায় ধীরেন্দ্র এবং শৈলেন্দ্র কুমার নামে ২ জওয়ান নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছেন। আজ (সোমবার) ওই সংঘর্ষের ঘটনায় হতাহতরা ১১০ নম্বর ব্যাটেলিয়ানের জওয়ান। হামলাকারীরা অবশ্য ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যেতে সমর্থ হয়েছে।

কাশ্মীর রেঞ্জের পুলিশের মহাপরিদর্শক বিজয় কুমার বলেন, সিআরপিফের উপরে হামলাকারীরা লস্কর-ই-তাইয়্যেবা সন্ত্রাসী বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। দু’জন সন্ত্রাসী মোটরবাইকে করে এসে এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষণ করলে সিআরপিএফের ২ সদস্য নিহত ও অন্য ৩ জন আহত হয়েছেন।

আজ পামপোরের কান্দিজাল ব্রিজে আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফের ১১০ নম্বর ব্যাটালিয়নের জওয়ান এবং জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের জওয়ানরা মোতায়েন ছিল। এ সময়ে গেরিলারা এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষণ শুরু করলে সিআরপিএফের ৫ জওয়ান আহত হয়। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে ২ জওয়ানের মৃত্যু হয়। অন্য ৩ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। সংশ্লিষ্ট এলাকা ঘিরে ফেলে হামলাকারীদের সন্ধানে ব্যাপক তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

পুলিশ মনে করছে হামলাকারী সন্ত্রাসীরা বেশিদূর পারেনি। তারা কাছাকাছি কোথাও লুকিয়ে আছে। নিরাপত্তা বাহিনী জাতীয় মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে পলাতক গেরিলাদের সন্ধানে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে।

গণমাধ্যমের একটি সূত্র বলছে, হামলাকারীরা কমপক্ষে ২৫ মিনিট ধরে গুলিবর্ষণ করেছে। যখন নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ানরা হামলাকারীদের উদ্দশ্যে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে তখন সুযোগ বুঝে তারা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

ওই ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ ও সেনাবাহিনীর রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের ৫০ নম্বর ব্যাটেলিয়ানের যৌথবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে জাতীয় সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর, পুলওয়ামা জেলার অবন্তিপোরার সাম্বুরা এলাকায় গেরিলা ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে একটি সংঘর্ষ হয়। নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে ওই এলাকায় ২/৩ জন গেরিলা লুকিয়ে থাকার খবর ছিল। এরপরে এক অভিযানে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে দুই গেরিলার মৃত্যু হয়। ওই সংঘর্ষে একজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছিলেন।#পার্সটুডে

রুদ্ধদ্বার বৈঠক করলেন এরদোগান ও লিবিয়ার প্রধানমন্ত্রী সাররাজ

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান এবং লিবিয়ার বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী ফাইয়াজ আল সাররাজ তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন। বৈঠকে দু পক্ষেরই পররাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রতিরক্ষা, স্বরাষ্ট্র ও অর্থমন্ত্রীর ছাড়াও শীর্ষ পর্যায়ের অনেক কর্মকর্তা যোগ দেন।

রুদ্ধদ্বার বৈঠকের ব্যাপারে বিস্তারিত কোনো তথ্য প্রকাশ করা হয় নি তবে দু’দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো কিভাবে জোরদার করা যায় তা নিয়ে পরিকল্পনা করতেই এ বৈঠক হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গত মাসেও ইস্তাম্বুল শহর এরদোগান এবং সাসরাজের মধ্যে এ ধরনের রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়েছিল। ফাইয়াজ আল-সাররাজ চলতি মাসেই লিবিয়া সরকারের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়াবেন।


খলিফা হাফতার

তুরস্ক ও লিবিয়া এর আগে একটি সামরিক চুক্তি সই করেছে। এর পাশাপাশি ভূমধ্যসাগরের সীমানা নির্ধারণ নিয়েও একটি চুক্তি সই করে দু দেশ।

২০১১ সালে লিবিয়ার সাবেক নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফিকে ন্যাটো বাহিনী হত্যা করার পর দেশটিতে মারাত্মক রকমের গৃহযুদ্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে সাররাজের নেতৃত্বে ত্রিপোলিভিত্তিক আন্তর্জাতিক সমাজ স্বীকৃত একটি সরকার রয়েছে। অন্যদিকে তবরুক শহরভিত্তিক বিদ্রোহী নেতা জেনারেল খলিফা হাফতারের নেতৃত্বাধীন একটি সরকার রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে দু পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত থাকার কারণে লিবিয়া আজ পর্যন্ত স্থিতিশীল হতে পারে নি। খলিফা হাফতারের মোকাবেলায় লিবিয়া সরকারকে সমর্থন দিয়ে আসছে তুরস্ক।#পার্সটুডে

কনডেমড সেলে যেভাবে প্রথম দিন কাটল মিন্নির

বরগুনার বহুল আলোচিত শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলার ফাঁসির দণ্ডাদেশ পাওয়া আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি কারাগারের কনডেমড সেল থেকে বাবা-মায়ের সঙ্গে গতকাল ফোন করেন। সকাল ১০টার সময় করা ফোনে কথা বলার সময় মিন্নি বেশ কান্নাকাটি করেন। মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর জানান, ‘সকাল ১০টার দিকে মিন্নি আমাদের সঙ্গে কথা বলেছে। সে খুব কান্নাকাটি করেছে। মিন্নি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে। ষড়যন্ত্র করে আমার মেয়েকে ফাঁসানো হয়েছে।’

বরগুনা জেলা কারাগারের কনডেমড সেলের একমাত্র নারী আসামি আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি। জেলা কারাগারের জেল সুপার মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘কারাবিধি অনুযায়ী ছয় বন্দিকে কনডেমড সেলে রাখা হয়েছে। কারাগার থেকে প্রত্যেককে দুই সেট করে পোশাক দেওয়া হয়েছে। কনডেমড সেলের বন্দিরা সেল থেকে বের হতে পারেন না। তবে মাসে স্বজনদের সঙ্গে একবার দেখা করতে পারেন। সপ্তাহে একবার ফোনে স্বজনদের সঙ্গে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কথা বলতে পারেন।’

জেল সুপার আরও বলেন, ‘মিন্নিকে আজ সকালে রুটি খেতে দেওয়া হয়েছে। দুপুরের খাবার ছিল ভাত, সবজি ও ডাল। রাতে গরুর মাংস, ভাত ও ডাল দেওয়া হবে।’

গত বছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পরের দিন রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১৩ জনের বিরুদ্ধে বরগুনা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। ওই বছরের ১ সেপ্টেম্বর নিহত রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্ত ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক দু’ভাগে বিভক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দেয় পুলিশ। প্রাপ্ত বয়স্কদের বিচারিক কার্যক্রম গত ১৬ সেপ্টেম্বর উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষ হয়। বুধবার মিন্নিসহ ৬ আসামিকে মৃত্যুদ- দেন বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান।

চিকিৎসায় নোবেল পেলেন ৩ বিজ্ঞানী

চিকিৎসাবিজ্ঞানে অবদান রাখায় চলতি বছর নোবেল পুরস্কার জিতেছেন হার্ভে জে অল্টার, মাইকেল হটন ও চার্লেস এম রাইস। হেপাটাইসিস সি ভাইরাস আবিস্কারের জন্য যৌথভাবে তাদের এই পুরস্কার দেওয়া হবে। প্রতিবছর মেডিসিনেই প্রথম নোবেল জয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। খবর এসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)।

বিজ্ঞান, সাহিত্য ও শান্তিতে বিশেষ অবদানের জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত, ১৯০৫ সালে নোবেল পুরস্কার প্রদান শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত চিকিৎসা ক্ষেত্রে ১০৯ বার নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। এর আগে ২০১৯ সালে কোষ কীভাবে অক্সিজেনের উপস্থিতি অনুভব করে এবং সাড়া দেয়, তা নিয়ে গবেষণা করে নোবেল জিতেছিলেন লন্ডনের ফ্রান্সিস ক্রিক ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক স্যার পিটার র‌্যাটক্লিফ এবং যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভাড বিশ্ববিদ্যালয়ের উইলিয়াম ক্যালিন ও জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রেগ সেমেন্জা। ২০১৮ সালে নেতিবাচক ইমিউন নিয়ন্ত্রণে বাধাদানের মাধ্যমে ক্যানসার থেরাপি আবিষ্কারের জন্য যৌথভাবে নোবেল পুরস্কার পান জেমস পি. অ্যালিসন ও তাসুকু হনজো। আর ২০১৭ সালের বায়োলজিক্যাল ক্লকসের মলিকিউলার মেকানিজমের আবিষ্কারের কারণে নোবেল পুরস্কার জেতেন বিজ্ঞানী জেফরি হল, মাইকেল রোশবাশ ও মাইকেল ইয়াং।

১৮৯৫ সালের নভেম্বর মাসে আলফ্রেড নোবেল নিজের মোট উপার্জনের ৯৪% (৩ কোটি সুইডিশ ক্রোনার) দিয়ে তার উইলের মাধ্যমে নোবেল পুরস্কার প্রবর্তন করেন। এই বিপুল অর্থ দিয়েই শুরু হয় পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, চিকিৎসাবিজ্ঞান, সাহিত্য ও শান্তিতে নোবেল পুরস্কার প্রদান। ১৯৬৮-তে তালিকায় যুক্ত হয় অর্থনীতি। পুরস্কার ঘোষণার আগেই মৃত্যুবরণ করেছিলেন আলফ্রেড নোবেল। আইনসভার অনুমোদন শেষে তার উইল অনুযায়ী নোবেল ফাউন্ডেশন গঠিত হয়। তাদের ওপর দায়িত্ব বর্তায় আলফ্রেড নোবেলের রেখে যাওয়া অর্থের সার্বিক তত্ত্বাবধান করা এবং নোবেল পুরস্কারের সার্বিক ব্যবস্থাপনা করা। বিজয়ী নির্বাচনের দায়িত্ব সুইডিশ একাডেমি আর নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটিকে ভাগ করে দেওয়া হয়।

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ১৫ দিন ধরে ছাত্রকে বলাৎকার

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলায় ঘুমের ওষুধ খাইয়ে গত ১৫ দিন ধরে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে তারই শিক্ষক শহিদুল্লাহর (৪৫) বিরুদ্ধে। গতকাল রোববার তাকে আটক করেছে পুলিশ। আগেও এক ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে।

সিদ্ধিরগঞ্জে মিজমিজি পাইনাদী নতুন মহল্লা এলাকায় অবস্থিত একটি মাদ্রাসার শিক্ষক শহিদুল্লাহ। ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, গতকাল রোববার ভুক্তভোগী পালিয়ে বাড়িতে চলে আসে। পরে তার কাছ থেকে ঘটনা জানতে পারেন তারা।

ওই ছাত্র জানায়, গত ১৫ দিন ধরে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মাদ্রাসার শিক্ষক শহিদুল্লাহ তাকে বলাৎকার করে আসছে। ব্যথা কমাতে তাকে ওষুধও সেবন করান। তাকে বিভিন্নরকম ভয়-ভীতিও দেখাতেন শহিদুল্লাহ।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, ওই শিক্ষক আগেও এক ছাত্রকে বলাৎকার করে। পরে বিষয়টি মাদ্রাসা প্রধানের সহায়তায় ধামাচাপা দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফয়সাল আলম জানান, অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সূত্র: আমাদের সময়

সাড়ে ৫০০ কোটি টাকা ব্যাংক ঋণ রেখে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ১৩৩ গার্মেন্ট

ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিভিন্ন সময় ৫৫২ কোটি টাকার ব্যাংক ঋণ নিয়ে এখন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ১৩৩টি গার্মেন্ট কারখানা। এই রুগ্ন কারখানাগুলোর কাছে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর সুদ-আসল ও মামলার খরচসহ মোট দায় তৈরি হয়েছে ৬৮৬ কোটি টাকার। এখন ব্যাংকগুলোর এই দায় পরিশোধে সরকারের কাছে ‘বেলআউট’ সুবিধা চাইছে তৈরি পোশাক খাতের উদ্যোক্তাদের সংগঠন বিজিএমইএ। তবে বাংলাদেশ ব্যাংক এক মতামতে জানিয়ে দিয়েছে, সরকার এই সমস্যার সমাধান করতে গেলে কারখানাগুলোর ব্যাংক ঋণের দায় সুদে-আসলে সরকারকেই মেটাতে হবে। এ অবস্থায় বিষয়টির সমাধানে আজ বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সভা ডেকেছে।

সূত্রগুলো জানায়, ১৩৩টি গার্মেন্ট কারখানার মধ্যে অনেক আগেই কিছু বন্ধ হয়ে গেছে, কিছু রুগ্ন হিসেবে তালিকাভুক্ত রয়েছে। এ অবস্থায় উল্লিখিত কারখানাগুলোর ব্যাংক ঋণের দায় বিশেষ বিবেচনায় অবসায়নের জন্য সরকারের কাছে গত বছরের নভেম্বরে আবেদন জানায় বিজিএমইএ। ওই আবেদনের পর আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ গত ১ ডিসেম্বর এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মতামত চায়। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, ওই সময় বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়ে দেয়, বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো যেহেতু গ্রাহকের আমানত দিয়ে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করে, সেহেতু এ ধরনের ঋণ অবসায়নে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কোনো নির্দেশনা দেওয়ার এখতিয়ার নাই। তবে সরকার চাইলে রুগ্ন শিল্পগুলোর ঋণ অবসায়নে দায় নিতে পারে। সে ক্ষেত্রে সরকারকে এই অর্থ পরিশোধ করতে হবে। জানা গেছে, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের চিঠি পাওয়ার পর বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর কাছ থেকে রুগ্ন শিল্প কারখানাগুলোর ঋণের তথ্য সংগ্রহ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংক তখন ১৩৩টির মধ্যে ২টি বাদে ১৩১টি তৈরি পোশাক কারখানার ঋণের তথ্য সংগ্রহ করতে সমর্থ হয়। তাতে দেখা যায়, এই কারখানাগুলোর মূলঋণ ছিল ৫৫২ কোটি ৫৩ লাখ টাকা, আয় খাতে নিট সুদ বাবদ দায় ১৪৭ কোটি ৫ লাখ টাকা এবং মামলা খরচ ৩ কোটি ৫৭ লাখ টাকাসহ ব্যাংকগুলোর মোট দায় দাঁড়িয়েছে ৬৮৬ কোটি ৩২ লাখ টাকা। এ অবস্থায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক মতামতে জানিয়ে দেয় : তৈরি পোশাক শিল্পের ওই রুগ্ন কারখানাগুলোর সার্বিক ঋণ অবসায়ন করতে হলে এই ৬৮৬ কোটি টাকার দায় সরকারকে মেটাতে হবে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, বিজিএমইএর পক্ষ থেকে আবেদন করার পর ২০১৩-১৪ অর্থবছরের বাজেট অধিবেশনে মোট ২৭৯টি রুগ্ন গার্মেন্ট শিল্পের ঋণ ও সুদ পরিশোধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে। এর মধ্যে আলোচ্য ১৩৩টি কারখানার ঋণ জটিলতা এখনো কাটেনি। বিজিএমইএর সভাপতি বলেন, আমরা এই বিষয়টি নিয়ে গতবছর থেকে সরকারের কাছে ধরনা দিচ্ছি। এই কারখানাগুলো করুণ অবস্থায় রয়েছে। তারা সবসময় মামলা ও হয়রানির শিকার হচ্ছে। তাদের বেলআউট সুবিধা দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ দিতে হবে। নয়তো ছোট ছোট কারখানাগুলো দেউলিয়া হয়ে যাবে। ‘বেলআউট’ সুবিধার বিষয়ে জানতে চাইলে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, বাংলাদেশ ব্যাংক যদিও বলেছে, সরকার চাইলে ব্যাংক ঋণ সুদাসলে পরিশোধ করে বেলআউট সুবিধা দিতে পারে। তবে ২০১৪ সালের ২০ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিবের সভাপতিত্বে একটি সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছিল যে, রুগ্ন শিল্পের বিষয়ে অর্থায়নকারী ব্যাংক/আর্থিক প্রতিষ্ঠান ঋণ গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে আইনানুগভাবে এ বিষয়ে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করবে। এখন এই ১৩৩ রুগ্ন শিল্পের বিষয়ে সরকারের করণীয় চূড়ান্ত করার আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ওই সিদ্ধান্তটিও আলোচনায় আসছে।

একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্রশিল্পী মনসুর উল করিম আর নেই

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অধ্যাপক ও একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্রশিল্পী মনসুর উল করিম মারা গেছেন। সোমবার দুপুর ১২টার ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুরবণ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মনসুর উল করিমের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, দীর্ঘদিন তিনি বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। কয়েকদিন পূর্বে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সোমবার দুপুর ১২টার দিকে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। পরিবারের সাথে আলোচনা করে সময় নির্ধারণ করে রাজবাড়ীর জেলা সদরের বুনন আর্ট প্রাঙ্গনের তার দাফন অনুষ্ঠিত হবে।
একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্র শিল্পী মনসুর উল করিম ১৯৫০ সালে রাজবাড়ীতে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭২ সালে ঢাকা আর্ট ইনস্টিটিউট থেকে চারুকলায় স্নাতক এবং ১৯৭৪ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। ২০০৯ সারে একুশে পদক লাভ করেন। এছাড়া ১৯৯২ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী আয়েজিত একাশত জাতীয় চারুকলা প্রদর্শনী থেকে পুরস্কার লাভ। ১৯৯৩ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী পুরস্কার অনেক আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করেন। তার মৃত্যুতে রাজবাড়ীর সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।