নারী নির্যাতনের জন্য মোদিকে দায়ী করলেন নুসরাত

ভারতের ধর্ষণকাণ্ডের জন্য দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দায়ী করছেন তৃণমৃল সাংসদ ও অভিনেত্রী নুসরাত জাহান রুহি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মোদিকে দায়ী করে নসুরাতের দেওয়া একটি স্ট্যাটাস নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ আলোচনা চলছে দেশজুড়ে।

ভারতের হাথরাসে ধর্ষণকাণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র একটি টুইট করেন। তিনি লেখেন, উত্তরপ্রদেশে এসব হচ্ছে কী? চারদিকে শুধু ধর্ষণ আর ধর্ষণ।
সম্বিত পাত্রের এই টুইটের পরেই নুসরাত টুইট করে বলেন, অবশেষে কেউ একজন এই ভয়াবহ বাস্তবতা স্বীকার করেছে। দলিত এবং নারীদের বিরুদ্ধে এই ক্রমবর্ধমান অপরাধ ও নৃশংসতার জন্য নরেন্দ্র মোদি দায়ী।

রায়ের কপি নিয়ে ঢাকার পথে মিন্নির বাবা

বরগুনার আলোচিত রিফাত হত্যা মামলার পূর্ণাঙ্গ রায়ের কপি হাতে পেয়েছেন মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর। রায়ের কপি নিয়ে উচ্চ আদালতে আপিল করতে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন তিনি।

মিন্নির আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম বলেন, রায়ের কপি আজ সন্ধ্যার দিকে হাতে পেয়েছি। রায়ের কপি নিয়ে মিন্নির বাবা আজ রাতেই ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। রবিবার (০৪ অক্টোবর) উচ্চ আদালতে আপিলের জন্য আবেদন করবেন। তবে মিন্নির বাবার মুঠোফোন বন্ধ থাকায় এ বিষয়ে কথা বলার সম্ভব হযনি।
এর আগে শনিবার (৩ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে পূর্ণাঙ্গ রায়ের সার্টিফায়েড কপি হাতে পেয়েছেন মিন্নির বাবা।

উল্লেখ্য, গত ৩০ সেপ্টেম্বর বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আছাদুজ্জামান চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি ছয় আসামির সবাইকে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন আদালত। এ হত্যার ঘটনায় পুলিশ ২৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দিলেও তার মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিচার চলে এ আদালতে।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, রাকিবুল হাসান রিফাত ফরাজি (২৪), আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন (২২), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (২০), রেজওয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২৩), হাসান (২০) ও মৃত রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (২০)। এছাড়াও মামলার অপর চার আসামি রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২১), সাগর (২০), মুসা (২৩) ও কামরুল ইসলাম সাইমুনকে (২২) খালাস দেওয়া হয়।

বিডি প্রতিদিন

লক্ষ্মীপুরে ঘরে ঢুকে মা-মেয়েকে কুপিয়ে জখম

লক্ষ্মীপুরে ঘরে ঢুকে মা ও মেয়েকে এলোপাতাড়ি কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা। শনিবার রাত ৯ টার দিকে সদর উপজেলার বশিকপুর ইউনিয়নের বালাইশপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গুরুত্বর আহত মা মরিয়ম বেগম ও তার মেয়ে স্কুলছাত্রী সাদিয়াকে প্রথমে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তির পর আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে।

এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামানসহ পুলিশের একটি বিশেষ টিম। তবে কি কারণে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে পুলিশ তা জানাতে না পারলেও ২ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।
স্থানীয় এলাকাবাসী, হাসপাতাল সূত্র ও পুলিশ জানায়, স্থানীয় বালাইশপুর দেওয়ান বাড়ীর সৌদি প্রবাসী নবী উল্লাহর স্ত্রী মরিয়ম বেগম ও তার স্কুলে পড়ুয়া (৩য় শ্রেণির ছাত্রী) মেয়ে বাড়ীতে বাস করছিলেন। হঠাৎ ওই বাড়ীতে চিৎকারের শব্দ শুনে স্থানীয়রা এড়িয়ে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় তাদের পড়ে থাকতে দেখেন। হামলাকারীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মা মরিয়মের বাম হাতের ৪টি আঙ্গুল পড়ে যায়, ডান হাতও মারাত্মক জখম হয়, তার মেয়ের মাথার পেছনের অংশে একাধিক কোপের চিহ্ন রয়েছে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা। পরে তাদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন তারা।

সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আসিফ মাহমুদ জানান, মা ও মেয়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় এবং অঙ্গহানি হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপার জানান, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। হামলার কারণ ও জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

বিডি প্রতিদিন

রিমান্ড শেষে কারাগারে ১২ নাইজেরিয়ান

রাজধানীর পল্লবী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ১২ নাইজেরিয়ানকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

শনিবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কনক বড়ুয়া তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

গত ২১ জুলাই রাতে রাজধানীর পল্লবী এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। পরদিন আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর সিআইডি তাদের রিমান্ড আবেদন করে। আদালত প্রত্যেকের তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সেই রিমান্ড শেষে শনিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির উপ-পুলিশ পরিদর্শক নিউটন কুমার দত্ত আসামিদের আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক তাদের কারাগারে পাঠান।

কারাগারে যাওয়া আসামিরা হলেন, নন্দিকা কেনেন্ট, ক্লেটাস আছুনা, ওইউকুলভ টিমটি, একিন উইসডোম, চিগোজি, ইভুন্ডে গ্যাব্রিল ওবিনা, স্যালেস্টাইন প্যাট্রিক, মর্দি ন্যামডি, ওরদু চুকওরদু সাম্মি, ডুবুওকন সোমায়ইনা, জেয়েরেম প্রেসিয়াস একমি ও ওক উইসডম।

জানা যায়, তারা একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য। তারা ফেসবুকে বন্ধুত্বের নামে অনেক লোকের কাছ থেকে দামি উপহারের লোভ দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তারা নিজেদের আমেরিকান অথবা ব্রিটেনের নাগরিক পরিচয় দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্পর্ক তৈরি করেন। বিদেশ থেকে দামি উপহারের লোভ দেখানোর কৌশল ব্যবহার করেন তারা।

পরে প্রতারণার শিকার এক ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। ওই ব্যক্তির কাছ থেকে তারা তিন লাখ ৭৩ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন।

বিডি-প্রতিদিন

কতটা নিচে নেমে গিয়েছে আমাদের সমাজের মানুষ গুলো

কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সদ্য পাশ করা এক মেয়ের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পত্রিকা পড়ে এবং টেলিভিশন দেখে যা বুঝতে পেরেছি; তাতে ঘটনা হচ্ছে- মেয়েটার বড় বোনের বিয়ে হয়েছিলো। এরপর ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। তো, বড় বোনের এই সাবেক স্বামী তার দলবল নিয়ে এসে তিন্নি নামের এই মেয়েটার বড় বোনকে জোর করে উঠিয়ে নিয়ে যেতে চাইছিল।  তিন্নি বাঁধা দিলে তার বোনের এই সাবেক স্বামী, ওই স্বামীর দুই ভাই, মামা, মামাত ভাই সবাই মিলে তাকে পাশের রুমে নিয়ে পাশবিক নির্যাতন চালায়। এরপর হত্যা করে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রেখে চলে যায়। অন্তত মেয়েটার পরিবার এমনটাই দাবি করেছে এবং এদের সবার নামে মামলা করেছে।

আর সেখানকার পুলিশ কি বলছে শুনবেন?
“মেয়টা লজ্জায় আত্মহত্যা করেছে!”
মেয়েটাকে হত্যা করা হয়েছে নাকি মেয়েটা আত্মহত্যা করেছে; সেটা না হয় তদন্তের ব্যাপার। এতটুকু মানতে পারছি।
কিন্তু মেয়েটা “লজ্জায়” আত্মহত্যা করেছে; পুলিশ কেন এভাবে বলছে?
মেয়েটা কী কোথাও লিখে গিয়েছে- আমি “লজ্জায়” আত্মহত্যা করছি?
তাহলে পুলিশ কেন আগ বাড়িয়ে “লজ্জা” শব্দটা ব্যাবহার করেছে?
এটাই আমাদের সমাজ।

এখানে যারা ধর্ষণ করে, তারা লজ্জিত হয় না। লজ্জায় নাকি মেয়েটা আত্মহত্যা করেছে। কোন তদন্তের আগেই পুলিশ কি চমৎকার করে বলে দিয়েছে “লজ্জায়” আত্মহত্যা করেছে! ধর্ষিত হলে মেয়েটাকে “লজ্জিত” হতে হবে; এমন ধ্যান- ধারণা এভাবেই তৈরি হয়।

একবার চিন্তা করে দেখুন, তিন আপন ভাই, মামা, মামাত ভাই সবাই এক সাথে মিলে ধর্ষণ করেছে! কতটা নিচে নেমে গিয়েছে আমাদের সমাজের মানুষ গুলো।

আর এই যে কুষ্টিয়ার ইসলামী ইউনিভার্সিটির একটা মেয়েকে এভাবে ধর্ষণ করে মেরে ফেলা হলো। কই, ফেসবুকে তো এই ঘটনা নিয়ে তেমন কোন আলোচনা দেখতে পাচ্ছি না। অবশ্য মেয়েটা তো আর অতো মেধাবী ছিল না। পড়েছে কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে।

ঢাকা ইউনিভার্সিটি কিংবা বুয়েটের কেউ হলে অবশ্য পুরো ফেসবুক জুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠত। রাস্তায় আন্দোলন হতো। টেলিভিশনের টকশো’তে ঝড় উঠত।

মেধাবীদের জন্য আমাদের আবার আলাদা আবেগ আছে। পত্রিকায় বড় করে শিরোনাম করা যায়- মেধাবী ছাত্র বা ছাত্রী’র রহসসজনক মৃত্যু!  তখন আমরাও বলে বসি- আহা, কতো মেধাবী ছিল। কতো সম্ভাবনা ছিল। অকালে’ই ঝড়ে গেল। অথচ এই মেয়েটারও হয়ত অনেক স্বপ্ন ছিল; ভালোবাসার মানুষ ছিল।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

প্রযুক্তিগত পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গেই অংশীজনদের সম্পৃক্ত করতে হবে

প্রযুক্তিগত পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গেই অংশীজনদের সম্পৃক্ত করতে হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। আজ শনিবার বিস্ফোরক পরিদপ্তরের অনলাইনে সেবা বাস্তবায়ন বিষয়ক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রযুক্তিগত পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গেই অংশীজনদের সম্পৃক্ত করতে হবে। নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার বান্ধব হতে হবে। কেননা মানুষ পরিবর্তনকে সহজভাবে গ্রহণ করতে চায় না। অনলাইন সেবা, সময় ও অর্থের সাশ্রয়ের সঙ্গে সঙ্গে দুর্নীতিও লাগব হবে।’

অনলাইনে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে লাইসেন্স তৈরি ও নবায়ন করা গেলেও টাইম-লাইন সুস্পষ্ট করা হয়নি। তিনি পুরাতন ডাটা ও নথি ডিজিটালাইজড করার নির্দেশনাও প্রদান করেন। বিস্ফোরক পরিদপ্তর থেকে অনলাইনে যেসব সেবা পাওয়া যাবে তা হলো-

১. পেট্রোলিয়াম শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত প্রজ্জ্বলনীয় রাসায়নিক পদার্থ আমদানিকরণের অনাপত্তি।

২. সিলিন্ডার,সিলিন্ডারের ভাল্ভ আমদানিকরণের লাইসেন্স।

৩. প্রজ্জ্বলনীয় এবং বিপজ্জনক পদার্থ আমদানিকরণের অনুমতি।

৪. গ্যাসাধার আমদানিকরণের পারমিট।

৫. খনিজ সম্পদ অনুসন্ধানে ব্যবহার্য বিস্ফোরক আমদানিকরণের লাইসেন্স এবং পারমিট।

৬. নবায়ন সংশ্লিষ্ঠ আবেদন সমূহ।

৭. পেট্রোলিয়াম শ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত প্রজ্জ্বলনীয় তরলপদার্থ আমদানি ও মজুদকরণের লাইসেন্স।

৮. স্থলপথে বিস্ফোরক পরিবহনের লাইসেন্স।

৯. সর্বসাধারনের প্রদর্শনের জন্য আতশবাজির লাইসেন্স।

১০. এলপিজি মজুদকরণ অথবা মজুদ ও সিলিন্ডারে উক্ত গ্যাস ভর্তি করার জন্য লাইসেন্স।

১১. বিস্ফোরক ব্যবহারের জন্য স্বল্প মেয়াদে বা স্থায়ী ভাবে ম্যাগাজিনে/বাঙ্কারে বিস্ফোরক অধিকারে রাখার লাইসেন্স।

১২. জলপথে/আকাশপথে বিস্ফোরক পরিবহনের লাইসেন্স।

১৩. গ্যাসাধারে গ্যাস (এলপিজি ) মজুদকরণের লাইসেন্স।

১৪. পরিবহন যানে গ্যাসপূর্ণ (এলপিজি ব্যতীত অন্যান্য গ্যাস) আধার পরিবহনের লাইসেন্স।

১৫. পরিবহন যানে এলপিজি পূর্ণ আধার পরিবহনের লাইসেন্স।

১৬. মোটর যানের জ্বালানি হিসেবে সরবরাহের উদ্দেশ্যে ট্যাঙ্কে পেট্রোলিয়াম মজুদের লাইসেন্স

১৭. নদীপথে (জলযানে) ট্যাঙ্কারে পেট্রোলিয়াম পরিবহনের লাইসেন্স ১৮. সড়ক পথে  ট্যাঙ্কারে পেট্রোলিয়াম পরিবহনের লাইসেন্স।

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনলাইনে হওয়া এ েঅনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে এটুআই প্রকল্পের পরিচালক আব্দুল মান্নান ও প্রধান বিস্ফোরক পরিদর্শক মো.মঞ্জরুল হাফিজ সংযুক্ত থেকে বক্তব্য দেন।

পদ্মায় নৌকাডুবির ৯ দিন পর ভেসে উঠল ভাইবোনের লাশ

রাজশাহীর পদ্মা নদীতে নৌকাডুবিতে নিখোঁজ হওয়া বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী সাদিয়া ইসলাম সূচনা ও তার ফুপাতো ভাই রিমনের লাশ পাওয়া গেছে। ঘটনার নয়দিন পর আজ শনিবার ভোরে ঘটনাস্থলেই তাদের লাশ ভেসে ওঠে। এর আগে গত ২৫ সেপ্টেম্বর বিকালে রাজশাহী নগরীর নবগঙ্গা এলাকায় মাঝি ও ১২ জন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। এরপর স্থানীয়রা মাঝিসহ ১১ জনকে উদ্ধার করলেও দুই ভাইবোন নিখোঁজ ছিল।

দুই দিন উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে অভিযান সমাপ্ত করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। কিন্তু স্বজনরা পদ্মা ছেড়ে আসেননি। তারা ঘটনার পর থেকেই পদ্মার বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে নিখোঁজদের অন্তত লাশ দুটি খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। শনিবার ভোরে তারা ঘটনাস্থলেই লাশ দুটি ভাসতে দেখেন।
ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের রাজশাহীর উপ-সহকারী পরিচালক জাকির হোসেন বলেন, হয়তো লাশ দুটি কোন কিছুর নিচে চাপা পড়ে ছিল। সে কারণে খুঁজে পাওয়া যায়নি, ভেসেও ওঠেনি। তা না হলে ডুবে যাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই লাশ ভেসে ওঠে। কিন্তু এক্ষেত্রে টানা নয়দিন সময় লাগল।

তিনি আরও বলেন, স্বজনরা লাশ পাওয়ার পর পুলিশের সহায়তায় তারা লাশ রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে নিয়ে গেছেন। সেখানে ময়নাতদন্তের পর লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

মৃত সাদিয়া ঢাকার আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের (এআইইউবি) বিবিএ তৃতীয় সেমিস্টারের ছাত্রী ছিলেন। তিনি ঢাকার ধানমন্ডি এলাকায় বসবাস করেন। আর রিমনের বাড়ি নওগাঁ। সে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল। তারা রাজশাহীর পবা উপজেলার খোলাবোনা এলাকায় চাচা জালাল উদ্দিনের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। তারপর নৌকাভ্রমণে পদ্মায় গিয়েছিল তারা।

নৌকাডুবির ঘটনায় দামকুড়া থানায় রাজশাহী নৌ-পুলিশের পক্ষ থেকে নৌকার দুই মালিকসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। নৌকায় লাইফজ্যাকেট না থাকায় তাদের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগ আনা হয়েছে। নৌ-পুলিশই মামলাটির তদন্ত করছে। তবে এ ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

বিডি-প্রতিদিন

কুমিল্লায় বাসচাপায় মাইক্রোবাস চালকসহ নিহত দুই

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার বুড়িচংয়ে বাস চাপায় মাইক্রোবাস চালকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও দুই জন।

শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার কোরপাই এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে তারা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী। আহতদেরকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চার লেন সড়কের চট্টগ্রাম অভিমুখে লেনে শুক্রবার (০২ অক্টোবর) রাত থেকেই একটি ট্যাংক লরি বিকল হয়ে রাস্তার পাশে পড়েছিল। শনিবার সকালে এই বিকল ট্যাংক লরিটির পেছনে আরেকটি কাভার্ডভ্যান এসে দাঁড়ায়। সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি মাইক্রোবাস থেমে থাকা গাড়ি দুটির পেছনে এসে থামে। একই সময় পেছন দিক থেকে আসা চট্টগ্রাম অভিমুখী একটি যাত্রীবাহী বাস এসে সজোরে চাপা দেয় মাইক্রোবাসটিকে। এ সময় মাইক্রোবাসের ভেতরে থাকা একজন নারী ও চালক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। মাইক্রোবাসে থাকা গুরুতর আহত অপর দুই যাত্রীকে তাৎক্ষণিকভাবে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় স্থানীয়রা। এ দু’জনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

গণমাধ্যমকে ময়নামতি ক্রসিং হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাফায়েত হোসেন জানান, নিহতদের মরদেহ ও দুর্ঘটনাকবলিত দু’টি গাড়ি উদ্ধার করা হয়েছে। বর্তমানে মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক আছে।

বিডি-প্রতিদিন

বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

পুষ্টিগুণে বাদাম অনন্য একটি ফল। বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ই, ফাইবার, সেলেনিয়াম, ভিটামিন সি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যামাইনো অ্যাসিড, পটাশিয়াম এবং ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড। এসব উপাদান মানব শরীরের নানা প্রয়োজন মেটায়। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন রোগব্যাধি থেকে মানব শরীরকে সুরক্ষাও দেয়। বাদামের উপকারিতা সম্পর্কে নিচে দেওয়া হলো…

হাড়ের রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে : বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, বাদামে উপস্থিত ফসফরাস শরীরে প্রবেশ করার পর এমন কিছু কাজ করে, যার প্রভাবে হাড়ের ক্ষমতা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। তাই প্রতিদিন বাদাম খাওয়া শুরু করলে হাড়ের রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কম থাকবে।

মস্তিস্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় : আমেরিকার অ্যান্ড্রস ইউনিভার্সিটির গবেষকদের করা এক পরীক্ষায় দেখা গেছে, বাদামে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই পরীক্ষার আগে ছাত্রছাত্রীদের নিয়ম করে বাদাম খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে।

ক্যান্সার দূরে থাকে : বাদামে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই। এটি ফ্যাট দ্রবীভূত একটি অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট। কোষকে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস সংক্রান্ত ক্ষতির থেকে রক্ষা করে। তাই ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমায়। ক্যান্সার প্রতিরোধ করার পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটানোর মধ্যে দিয়ে নানাবিধ সংক্রমণকে দূরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে বাদাম।

পুষ্টির ঘাটতি দূর হয় : বাদামে রয়েছে প্রায় ৩.৫ গ্রাম ফাইবার, ৬ গ্রাম প্রোটিন, ১৪ গ্রাম ফ্যাটসহ ভিটামিন ই, ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন বি২, ফসফরাস এবং ম্যাগনেসিয়াম। এই সবকটি উপাদানই শরীরকে সুস্থ রাখতে বিশেষ প্রয়োজনে লাগে।

কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে : শরীরে বাজে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় বাদাম। প্রতিদিনের ডায়েটে বাদামের অন্তর্ভুক্ত করলে হার্টের স্বাস্থ্য নিয়ে আর চিন্তায় থাকতে হবে না। আসলে বাদামে উপস্থিত বেশ কিছু কার্যকরী উপাদান শরীরে অন্দরে ভাল কোলেস্টরলের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই খারাপ কোলেস্টরলের মাত্রা কমতে শুরু করে। এছাড়া বাদামে প্রচুর পরিমাণ মনো-স্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে, থাকে ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিডও। কিন্তু কোনওরকম ট্রান্স ফ্যাট থাকে না। ফলে হার্ট অ্যাটাক কিংবা স্ট্রোকেরও আশঙ্কা কম থাকে।

ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে থাকে : পুষ্টিবিজ্ঞানীরা বলেন, বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এই মৌল। তাই ম্যাগনেসিয়ামের পরিমাণ সঠিক থাকলে ইনসুলিনের সঠিক কার্যকলাপ বজায় থাকে।

ওজন নিয়ন্ত্রণের সহায়ক : বাদাম খাওয়ার পর ক্ষিদে একেবারে কমে যায়। ফলে মাত্রাতিরিক্ত খাবার খাওয়ার প্রবণতা হ্রাস পায়। সেই সঙ্গে শরীরে প্রয়োজন অতিরিক্ত ক্যালরি জমে ওজন বৃদ্ধির সম্ভাবনাও কমে। বিপাকের হার বাড়িয়ে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতেও সাহায্য করে চিনাবাদাম।

কোষ্ঠকাঠিন্য কমায় : বাদামের ফাইবার শরীরের জন্য উপাদেয়। আর্জিনিন এবং হেলদি ফ্যাটের সঙ্গে এই ফাইবারের উপস্থিতি কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজ রোগীদের ক্ষেত্রে অত্যন্ত জরুরি। ফাইবারযুক্ত খাবার খেলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমে।

কোষের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় : বাদামে থাকা প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন ই শরীরের প্রতিটি কোণায় ছড়িয়ে থাকা কোষের কর্মক্ষমতার বৃদ্ধি ঘটানোর সঙ্গে সঙ্গে শরীরে, যাতে কোনো ক্ষতের সৃষ্টি না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখে। ফলে বয়স বাড়লেও শরীরের উপর এর কোনও প্রভাব পরে না।

হজম ক্ষমতার উন্নতি : বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত পানিতে ভেজানো বাদাম খেলে দেহের অন্দরে বিশেষ কিছু এনজাইমের ক্ষরণ বেড়ে যায়, যার প্রভাবে হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটতে শুরু করে। সেই সঙ্গে গ্যাস-অম্বলের প্রকোপও কমে যায়।

সবাই ভাজা বাদাম খেতে পছন্দ করেন। কিন্তু পুষ্টিবিজ্ঞানীরা বলছেন, ভাজা বাদামের চেয়ে কাঁচা বাদামের পুষ্টিগুণ বেশি। আবার চিকিৎসকরা বলেন, বাদাম খান পানিতে ভিজিয়ে। অন্তত ৮-১০ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখলে বাদামের সম্পূর্ণ পুষ্টিগুণ লাভ করে শরীর।

বড়পর্দায় আসছেন কিয়ারা

করোনাকালের পর আবারও বড়পর্দায় মুক্তি পাচ্ছে বলিউডের ছবি। তবে ভারতে নয়, কিয়ারা আদভানি অভিনীত ‘লক্ষ্মী বোম্ব’ ছবিটি আসন্ন দিওয়ালিতে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে মুক্তি পাবে। এতে ‘কবির সিং’ তারকার বিপরীতে অভিনয় করেছেন অক্ষয় কুমার। সম্প্রতি টুইটারে নির্মাতা রাঘব লরেন্স ঘোষণা দেন, ছবির মুক্তির তারিখ আর পেছানো হবে না। আসছে দিওয়ালি উপলক্ষে ৯ নভেম্বর এটি প্রেক্ষাগৃহে আসবে। পাশাপাশি ডিজনি প্লাসেও এটি স্ট্রিমিং হবে।

সম্প্রতি ‘লক্ষ্মী বোম্ব’-এর নতুন একটি পোস্টার শেয়ার করা হয়েছে। ছবিতে একজন পুরুষ, আবার একজন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হিসেবে দেখা যাবে অক্ষয়কে। তামিল হরর-কমেডি ‘মুনি ২ : কাঞ্চনা’র হিন্দি রিমেক এটি। রিমেকের মতো আগের ছবিটিও নির্মাণ করেছিলেন পরিচালক রাঘব লরেন্স। ‘এম এস ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু কিয়ারার পরবর্তী ছবি ‘শেরশাহ’। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন ‘কথিত প্রেমিক’ সিদ্ধার্থ মালহোত্রা। অন্যদিকে অক্ষয়ের মুক্তি প্রতীক্ষিত ছবি ‘সূর্যবংশী’। রোহিত শেঠি পরিচালিত এ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ক্যাটরিনা কাইফ।