জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের ভাষণে যা বললেন প্রিয়াঙ্কা

এবার ‘অন্য’ মঞ্চেও জ্বলে উঠলেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাস। জাতিসংঘের মঞ্চে বিশ্বকে মনে করিয়ে দিলেন, বর্তমান এবং ভবিষ্যতের চাবিকাঠি আমাদের নিজেদের হাতেই রয়েছে এবং ন্যায্য, সুরক্ষিত ও স্বাস্থ্যকর দুনিয়া প্রতিটি নাগরিকেরই অধিকার।

মঙ্গলবার জাতিসংঘের সাধারণ সভায় ভাষণ দেন প্রিয়াঙ্কা। বলিউড ছেড়ে যিনি হলিউডেই ঘাঁটি গেড়েছেন। অভিনেতা-প্রযোজক ছাড়া প্রিয়াঙ্কার আরও একটি পরিচয় রয়েছে। তিনি জাতিসংঘের ‘গুডউইল অ্যাম্বাসাডর’ বা শুভেচ্ছাদূত।

সুস্থায়ী উন্নয়নের লক্ষ্যে জাতিসংঘের সমস্ত সদস্য দেশের লক্ষ্যমাত্রাও নিজের ভাষণে মনে করিয়ে দেন তিনি। প্রিয়াঙ্কা বলেন, “বিশ্বের এক সঙ্কটময় সময়ে আমরা আজ মিলিত হয়েছি, যেখানে দুনিয়াজোড়া ভ্রাতৃত্ববোধের প্রয়োজনীয়তা আগের থেকে বেশি জরুরি।”

 

সাম্প্রতিক সময়ে গোটা বিশ্বই যে স্বস্তিজনক অবস্থায় নেই, তা-ও মনে করিয়ে দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। তার কথায়, “কোভিডের মতো মহামারীর বিধ্বংসী প্রভাবের জেরে বিশ্বের নানা দেশই সঙ্কটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্কটের জেরে জীবন-জীবিকা প্রভাবিত হয়েছে। বিশ্বের ন্যায্য ভিত্তিকেই ধ্বংস করে দিয়েছে দারিদ্র এবং অসাম্য। যার জন্য আমরা দীর্ঘ দিন ধরে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি।”

জাতিসংগের পক্ষে প্রিয়াঙ্কার এই ভাষণ সম্প্রচার করা হয়েছে ইউটিউবে। সেখানে তাকে গাঢ় নীল পোশাকে দৃপ্ত ভঙ্গিতে ভাষণরত দেখা গেছে। বিশ্বজুড়ে নানা সমস্যার কথা তুলে ধরেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে সুস্থায়ী উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করেছে এর সমস্ত সদস্য। তারই অঙ্গ হিসেবে দারিদ্র দূরীকরণ, পরিবেশরক্ষা এবং বিশ্ববাসীর জীবনের মান উন্নয়নসহ ১৭টি লক্ষ্য রয়েছে জাতিসংঘের। ১৫ বছরের এই দীর্ঘ পরিকল্পনার কথা মনে করিয়ে দিয়ে প্রিয়াঙ্কার মন্তব্য, “এই বিশ্ববাসীর কাছে আমরা ঋণী, এই পৃথিবীর কাছে আমরা ঋণী। যে বিশ্বে বসবাস করি তা ন্যায্য, নিরাপদ এবং সুস্থ হোক, সেটাই আমাদের প্রাপ্য।” সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমসইন্ডিয়া টুডেএনডিটিভিদ্য ইকোনমিক টাইমস

বলিউডের কৌতুকশিল্পী রাজু শ্রীবাস্তব আর নেই

বলিউডের কৌতুকশিল্পী রাজু শ্রীবাস্তব আর নেই। হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর দেড় মাস চিকিৎসাধীন ছিলেন। বুধবার সকালে মৃত্যু হয় এ কৌতুকশিল্পীর। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর।

গত ১০ আগস্ট হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হন রাজু। জিমে ট্রেডমিলে হাঁটতে হাঁটতে আচমকাই বুকে ব্যথা শুরু হয়। তার পরেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল রাজুকে। প্রথম দিকে অবস্থার অবনতি হলেও প্রায় ১৫ দিন হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে থাকার পর ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছিলেন। জ্ঞান ফিরেছিল। তবে গত ১ সেপ্টেম্বর আবার শারীরিক অবনতি হতে থাকে।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, হৃদরোগের চিকিৎসাধীন রাজুর হঠাৎই জ্বর আসতে শুরু করে। ঝুঁকি না নিয়ে রাজুকে লাইফসাপোর্ট সিস্টেমে রাখেন চিকিৎসকেরা। গত ২০ দিন সেভাবেই চিকিৎসা চলছিল কৌতুকাভিনেতার। বুধবার সকালে তার মৃত্যু হয়।

 

উল্লেখ্য, হার্ট অ্যাটাকের পর প্রথমে রাজুর অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হয়। দু’টি স্টেন্টও বসে। কিন্তু তাতে হার্ট সচল হলেও রাজু সুস্থ হননি। প্রায় ১৫ দিন ভেন্টিলেশনে থাকার পর জ্ঞান ফেরে রাজুর। গত ১ সেপ্টেম্বর রাজু আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপর থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত লাইফসাপোর্ট সিস্টেমেই রাখা হয়েছিল রাজুকে।

ভারতীয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, যা জানা গেল সুইসাইড নোটে

তামিল অভিনেত্রী পাউলিন জেসিকার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। চেন্নাইতে নিজের অ্যাপার্টমেন্ট থেকেই উদ্ধার হয় তার লাশ। স্টেজে তিনি পরিচিত ছিলেন দীপা নামে। রবিবার তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মারা যাওয়ার আগে নিজের ডায়েরিতে একটি সুইসাইড নোট লিখে গেছেন ২৯ বছরের এই অভিনেত্রী।

একাধিক বিখ্যাত তামিল ছবিতে কাজ করেছেন দীপা। এভাবে হঠাৎ চলে যাওয়ায় গভীরভাবে শোকাহত অভিনেত্রীর পরিবার ও বন্ধুরা। খবর বিশ্বাস করতে পারছেন না অনুরাগীরাও।

পুলিশ জানিয়েছে, চেন্নাই অ্যাপার্টমেন্টের একটি ঘরেই ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় জেসিকাকে। প্রাথমিকভাবে এটাকে আত্মহত্যা বলেই মনে করা হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। সমস্ত দিক খতিয়ে দেখছে চেন্নাই পুলিশ।

 

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, “আমরা আত্মহত্যার পিছনে কী কারণ আছে তা খতিয়ে দেখছি সমস্ত দিক থেকে। সিসিটিভিরও সাহায্য নিয়েছি।”

পুলিশ দেখছেন কারা কারা আসত জেসিকার ফ্ল্যাটে। সঙ্গে এই সন্দেহও এড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না যে এই অভিনেত্রীকে বাধ্য করা হয় আত্মহত্যা করতে। কারণ সুইসাইড নোটে লেখা আছে ব্যর্থ প্রেমের কারণেই এমন পথ বেছে নিয়েছেন তিনি।

ফলে অনেকেই মনে করছেন প্রেমে আঘাত পেয়েই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ওই অভিনেত্রী। সেদিকটাও দেখছে পুলিশ। দিনকয়েক আগে তামিল গীতিকার কাবিলানের মেয়ে থুরিগাই মাত্র ২৮ বছর বয়সে আত্মহত্যা করেন, তিনি একাধিক ছবিতে কস্টিউম ডিজাইনার হিসেবে কাজ করেছিলেন। ফের ঘটল এমন এক ঘটনা। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

সালমান খানের বার্তা নিয়ে ঢাকায় সোহেল খান

ভাই সালমান খানের বার্তা নিয়ে ঢাকায় এলেন বলিউড তারকা সোহেল খান। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা নাগাদ এই তারকা ঢাকায় নেমে সরাসরি চলে যান বনানীতে। সেখানে ভাই সালমান খানের চ্যারিটেবল ট্রাস্টের ফ্যাশন ব্র্যান্ড ‘বিইং হিউম্যান’-্এর আউটলেট উদ্বোধন করেন সোহেল খান।

এর আগেই ‘বিইং হিউম্যান বাংলাদেশ’-্এর ফেসবুক পেজ থেকে এক ভিডিওবার্তায় বলিউড সুপারস্টার সালমান খান বলেন, ‘হাই বাংলাদেশ। তোমাদের জন্য একটি সারপ্রাইজ আছে। আর সেটি হচ্ছে ‘‘বিইং হিউম্যান ক্লথিং’’ ঢাকার বনানীতে চালু হতে যাচ্ছে।’

সালমানের সে ব্যবসার অংশ হিসেবে আজ দুপুরে বনানীর আউটলেটে হাজির হন সোহেল খান। তাকে নেচে-গেয়ে বরণ করে নেন একদল নৃত্যশিল্পী। এ সময় সোহেল খান নিজেও একটু নেচে তাদের সঙ্গ দেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সোহেল খানের সঙ্গে হাজির ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির সিইও সঞ্জিব রাও এবং সালমান খানের ভাগ্নে আয়ান অগ্নিহোত্রি।

এ সময় সোহেল খান বলেন, ‘এখানে এসে আপনাদের দেখে অসাধারণ লাগছে। কারণ, প্রতিটি মানুষ হাসিখুশি। মনে হচ্ছে সবাই সুখী। আরও মনে হলো, সবাই সালমান খানের এই উদ্যোগের অংশীদার। অথচ আমি এখানে নামার আগে খুব নার্ভাস ছিলাম। মনে মনে ভাবছিলাম, সালমানের বদলে আপনারা আমাকে গ্রহণ করবেন তো!’

ভাই সালমান খানের ব্যস্ততার প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘ওর (সালমান) এখন অনেক ব্যস্ততা। একসঙ্গে অনেক কাজ হাতে। এজন্যই আমি এসেছি।’

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে ভারতের মুম্বাইতে শুরু হয় ‘বিইং হিউম্যান’-এর পথচলা। পোশাকের এই ব্র্যান্ডটির বিক্রয়ের লভ্যাংশের একটা অংশ ব্যয় করা হয় পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীর শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে। বাংলাদেশে ফ্র্যাঞ্চাইজিটির স্বত্বাধিকারী হিসেবে আছেন আর রেহমান ও মোহাইমিন মোস্তফা।

পুরোনো ঐহিত্য ফিরিয়ে আনছে ‘অপারেশন সুন্দরবন’

এক সময় চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রিতে হাতা আঁকা পোস্টার দিয়ে সিনেমার প্রচারণা চালানো হতো। কিন্তু কালের বিবর্তনে তা হারিয়ে যায়। চলে আসে ছবি ছাপানোর পোস্টার। এবার পুরোনো সেই ঐহিত্য ফিরিয়ে আনছে ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমার সংশ্লিষ্টরা।

সিনেমার পরিচালক দীপঙ্কর দীপন বলেন, ‘রং তুলির ছোঁয়ায় হাতে আঁকা পোস্টার বিভিন্ন লোকো মোটিভ বহন করে। কালের বিতর্তনে অনেক কিছুর পাশাপাশি এই ঐহিত্যও হারিয়ে যেতে বসেছে। কিন্তু পোস্টারের ঐহিত্যকে ফিরিয়ে আনতে না পারলেও তাদের আমরা স্মরণ করতে চাই। আগামীর সিনেমাগুলোতে যদি একটি করে পোস্টারও তাদের মাধ্যমে তৈরি করা হয় তাহলে এই মানুষগুলো সারাজীবন যে কাজটি করে এসেছে সেটা এই সময়ে করতে পারলেও গর্বিত হবে।’

র‍্যাব ওয়েলফেয়ার কো-অপারেটিভ সোসাইটি লি. প্রযোজিত সিনেমা ‘অপারেশন সুন্দরবন’। এর মুখপাত্র লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, ‘আগে এই পেশাটি অনেক লুকরেটিভ ছিল। এসব শিল্পীদের পিছনে মানুষ ঘুরে বেড়াত। নান্দনিক এসব পোস্টার দিয়ে আগে সিনেমা প্রচারণা হতো। এসব পোস্টার এতটাই নজর কাড়ত যে দর্শক সিনেমা হলে আসত। কিন্তু ২০১০ সালের পর থেকে এভাবে হাতে আঁকা পোস্টার আর দেখা যায়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘হাতে আঁকা পোস্টারের এই ঐতিহ্যকে আবার সামনে আনার চেষ্টা করছে র‍্যাব। সুভিনিয়র হিসেবে হাতে আঁকা পোস্টার তৈরি করছে। যেখানে ৩টি পোস্টার ও ১টি ব্যানার তৈরি করছি এবং সিনেমার সোনালী যুগে হাতে তৈরি পোস্টার যারা তৈরি করতেন সে সকল শিল্প ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ জানিয়ে অপারেশন সুন্দরবনের পোস্টার তৈরি করে হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যকে এ প্রজন্মের সামনে তুলে ধরাই আমাদের উদ্যোগ।’

আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর দেশের সিনেমা হলে মুক্তি পাচ্ছে ‘অপারেশন সুন্দরবন’। এর বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন রিয়াজ, সিয়াম, রোশান, নুসরাত ফারিয়া, দর্শণা বণিক, সামিনা বাশার, শতাব্দী ওয়াদুদ, মনির খান শিমুল, তাসকিন রহমান, মনোজ প্রামানিক, দীপু ইমাম, এহসানুর রহমানসহ অনেকে।

পা কেটে ফেলতে হবে কণ্ঠশিল্পী আকবরের

কণ্ঠশিল্পী আকবরের পা কেটে ফেলতে হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। কিডনির জটিলতা নিয়ে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। গত বুধবার তিনি হাসপাতালটিতে ভর্তি হন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কণ্ঠশিল্পী আকবরের ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে তার মেয়ে অথৈ লিখেছে, ‘আব্বুর অবস্থা খুবই খারাপ। দুই কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে। আর কিডনির অবস্থা খারাপ হওয়ায় শরীরে পানি জমেছিল। পানি জমার কারণে আব্বুর ডান পা নষ্ট হয়ে গেছে।’

আকবরের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘চিকিৎসকেরা বলছেন, ডান পা কেটে ফেলে দিতে হবে। এখন না কেটে ফেললে পুরো পা পচে গেলে পুরোটাই কেটে ফেলতে হবে।’

২০১৯ সালের জানুয়ারিতে কিডনি সমস্যা, রক্ত শূন্যতা, টিবি ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ ছিলেন আকবর। তার শরীরে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়ামের ঘাটতি দেখা দিয়েছিল। সেজন্য কোমর থেকে দুই পা অবশ ছিল। রোগ ও আর্থিক সংকটে তখন মুমূর্ষু ছিলেন এই শিল্পী। সেই সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আকবরকে ডেকে তার চিকিৎসার জন্য ২০ লাখ টাকা (সঞ্চয়পত্র) অনুদান দিয়েছিলেন।

কিশোর কুমারের ‘একদিন পাখি উড়ে’ নতুন করে গেয়েছিলেন আকবর। হানিফ সংকেতের ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’তে গানটি গাওয়ার তুমুল জনপ্রিয়তা পান তিনি। এরপর ‘তোমার হাতপাখার বাতাসে’ গানটি দেশ-বিদেশের দর্শক-শ্রোতার কাছে তাঁকে পরিচিত করে তোলে। গায়ক হিসেবে পরিচিতি পাওয়ার আগে রিকশা চালাতেন আকবর।

কুমারী না হলে কাজ পাওয়া মুশকিল ছিল, বিস্ফোরক অভিযোগ বলিউড অভিনেত্রীর

হতাশায় ডুবে থাকার দিন শেষ। ক্যান্সার জয় করে সবে কাজে ফিরেছেন বলিউড অভিনেত্রী মাহিমা চৌধুরী। কঙ্গনা রানাউতের ঐতিহাসিক ছবি ‘ইমার্জেন্সি’তে তিনি এবার লেখক তথা সমাজকর্মীর ভূমিকায়। ব্যক্তিজীবনেও স্বীকার করে নিলেন সমাজবদলের কথা। জানালেন, আগের বলিউড আর এখনকার বলিউডে আকাশ-পাতাল তফাৎ।

১৯৯৭ সাল। শাহরুখ খানের বিপরীতে ‘পরদেশ’-এ অভিনয় করে বলিউডে পা রেখেছিলেন মাহিমা। সে সময় নারীদের কোনও স্বর শোনা যেত না। সমাজের ইচ্ছায়, ইন্ডাস্ট্রির মনের মতো হয়ে জীবনযাপন করতে হতো নায়িকাদের, না হলেই ক্যা

রিয়ার শেষ। এক সাক্ষাৎকারে অতীতের সেই ভয়াবহ অভিজ্ঞতা রোমন্থন করলেন মাহিমা। বললেন, “আমি মনে করি, এখন ইন্ডাস্ট্রিতে নারীদের একটা জায়গা আছে। অভিনেত্রীরা ভাল পারিশ্রমিক পান, অনুমোদন পান। সম্মান পান। তাদের অবস্থান আগের চেয়ে অনেক মজবুত। কিন্তু এর আগের গল্পটা এত মসৃণ ছিল না।”

 

মাহিমা আরও বলেন, “তখন কেউ কারও সঙ্গে সম্পর্কে আছে শুনলে কাজ থেকে বাদ পড়ে যাওয়ার ভয় ছিল। বলিউড আপাদমস্তক কুমারী মেয়েদের চাইত। যারা কোনও দিন পুরুষের সাহচর্যে আসেনি, কাউকে চুমু খায়নি। আর যদি বিবাহিত হয়ে থাকেন তবে ভুলে যান। ক্যারিয়ার ওখানেই শেষ হয়ে গিয়েছে।”

মাহিমা জানান, বিয়ে হয়ে যাওয়া নারীরা ইন্ডাস্ত্রিতে পা রাখার কথা ভাবতেই পারতেন না। আর সন্তান থাকলে তো কথাই নেই। এই চরম লিঙ্গবৈষম্যের পরিস্থিতির মধ্যেই গিয়ে পড়েছিলেন মাহিমা। সব কিছু সামলে এখন সুদিন দেখছেন।

গত বছরের শুরুতে তার ক্যান্সার ধরা পড়ে। অভিনেতা অনুপম খের নেটমাধ্যমে সেই খবর সবাইকে জানিয়ে দিতেই অনেকে পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। তবে কারও অনুকম্পায় নয়, মনের জোরে সুস্থ হয়ে ওঠেন অভিনেত্রী। মুম্বাইয়ে চিকিৎসা করিয়ে যখন সুস্থ হওয়ার দিকে, তখন তার মাথার সব চুল পড়ে গিয়েছিল। বলিউডে আবার কাজ পাবেন ভাবেননি।

‌‌‘মিস অ্যান্ড মিসেস প্লাস’ হলেন পারিসা

‘মিস অ্যান্ড মিসেস প্লাস’ বাংলাদেশ-২০২১ বিজয়ী হলেন তাসনিয়া তাবাচ্ছুম পারিছা । শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজধানীর একটি হোটেলে গ্র্যান্ড ফিনালেতে বিজয়ীর মাথায় ক্রাউন পরিয়ে দেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী দিলারা জামান। দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন নির্জন মোমিন, তৃতীয় হয়েছেন রুমানা হক।

গ্র্যান্ড ফিনালের বিচারকের আসনে ছিলেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী দিলারা জামান, শিল্পী আবিদা সুলতানা, পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী, অভিনেত্রী রোজিনা ও অভিনেতা আফরান নিশো, আফজার পরশিয়া, সিলভি মাহমুদ, তৌহিদা আফরোজ, মেসবাউল আলম সাজু, ইভান শাহরিয়ার, ডনসন ড্যানি প্রমুখ।

রিয়েল হিরোজ এক্সপো অ্যান্ড কমিনিকেশন্সের উদ্যোগে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন ডিবিএল গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ।

 

আয়োজক মালা খন্দকার বলেন, ‘বডি শেমিং বন্ধ করো’ স্লোগান ধারণ করে খানিকটা পৃথুলা নারীদের আত্মবিশ্বাস পুনরুদ্ধারের জন্য প্রথমবারের মতো দেশে আয়োজন করা হয়েছে ‘মিস অ্যান্ড মিসেস প্লাস বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতা। এটি কেবল সৌন্দর্য প্রতিযোগিতাই নয়, স্বাস্থ্যবতী নারীদের নিজেদের ক্ষমতা ও শক্তি উপলব্ধির মাধ্যমও।

বিডি প্রতিদিন

‘ছবিটি আপনাদের অনুভূতিকে নাড়া দিবে’

নতুন ছবি নিয়ে হাজির জয়া আহসান। ছবির নাম ‌‘জয়া আর শারমিন’। সম্প্রতি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবিটির পোস্টার প্রকাশ করা হয়েছে। ছবিটি পরিচালনা করেছেন পিপলু আর খান। ছবির পোস্টার প্রকাশ করে জয়া আহসান ফেসবুকে লিখেছেন, ‘অবশেষে, জয়া আর শারমিন। দু’জন নারীর অচেনা ভুবনের ছবি। আমাদের অন্তর্জগতের ঘাত, প্রতিঘাত আর অনুক্ত, অব্যক্ত অনুভূতির ডকুমেন্টেশন। একটা অদ্ভুত সময়ে, অসাধারণ অভিজ্ঞতায় শ্যুট করা ছোট্ট একটা ছবি; কিন্তু আশা আছে এটি আপনাদের অনুভূতিকে নাড়া দিবে’।

জয়া আরও লিখেছেন, ‘আমি জয়া ‘জয়া’ চরিত্রে আর থিয়েটারের গুণী শিল্পী মহসিনা অভিনয় করেছেন ‘শারমিন’ চরিত্রে। ওর জন্য আমার শুভকামনা। আমাদের এই যাত্রায় আপনাদের সবাইকে শুভেচ্ছা’।

‘জয়া আর শারমিন’র গল্প ও চিত্রনাট্য লিখেছেন যৌথভাবে পিপলু খান এবং নুসরাত ইসলাম মাটি। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে পিপলু আর খানের ‘অ্যাপল বক্স’, আবু শাহেদ ইমনের ‘বক্স অফিস মাল্টিমিডিয়া’ এবং জয়া আহসানের প্রতিষ্ঠান ‘সি তে সিনেমা’।

 

বিডি প্রতিদিন

টিজারে নতুন লুকে সালমানের বাজিমাত

ভিন্ন লুকে নতুন সিনেমার টিজারে হাজির হলেন বলিউডের ভাইজান খ্যাত সালমান খান। সোমবার প্রকাশিত ‘কিসি কা ভাই, কিসি কা জান’-এর এক ঝলকে রীতিমতো আলোচনায় এসেছেন তিনি।

টিজারে তাকে বড় চুলে বেশ আকর্ষণীয় দেখাচ্ছে। টিজারটিতে শুধু তাকেই দেখানো হয়েছে। অন্য কোনো পার্শ্ব অভিনেতাকে দেখানো হয়নি। মুক্তির কোনো তারিখও উল্লেখ করা হয়নি। তবে টিজারটি প্রকাশ হওয়া মাত্রই ভক্তদের মাঝে দারুণ উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে।

‘এসকেএফ’ প্রডাকশনের ব্যানারে নির্মিত সিনেমাটিতে ভেংকটেশ, পূজা হেগড়ে, সিদ্ধার্থ নিগম, শেহনাজ গিলসহ আরো অনেকেই অভিনয় করেছেন বলে জানা গেছে। ছবিটি এ বছরের শেষ নাগাদ মুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে।