মাথায় নতুন চুল গজানোর উপায়

আমাদের বয়স বাড়ার কারণে অথবা বংশগত বা পরিবেশের প্রভাবে চুল পড়ে যেতে থাকে। তবে মাথার ত্বক বা স্ক্যাল্পে যদি আমরা উদ্দীপনা দিতে পারি, তাহলে মাথায় নতুন চুল গজানো সম্ভব। প্রতিটি চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালনের ব্যবস্থা রয়েছে। এটাকে যদি বাড়ানো যায়, তাহলেও নতুন চুল গজানো সম্ভব।

মাথায় নতুন চুল গজানোর উপায়;

প্রথম উপায় হলো ম্যাসাজ করা। নিয়মিত চুল ম্যাসাজ করতে হবে। এতে করে স্ক্যাল্পে রক্ত সঞ্চালন বাড়বে এবং স্ক্যাল্প উদ্দীপিত হবে।

চুলের গোঁড়ায় হেয়ার ফলিকল থাকে। ভাইব্রেশনের মাধ্যমে যদি ফলিকল উদ্দীপিত করা যায় তবে নতুন চুল গজানো সম্ভব।
এমন শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে যেটা আপনার স্ক্যাল্পের মৃত কোষগুলো ঝরে যেতে সাহায্য করবে। এই মৃত কোষগুলো স্ক্যাল্পের ফলিকল ব্লক করে রাখে, যে কারণে নতুন চুল গজানোর পথে বাঁধা দেয়। কেননা তখন স্ক্যাল্পে রক্ত সঞ্চালন কমে যায়। অল্প পরিমাণ শ্যাম্পু নিয়ে মাথায় ম্যাসাজের মত করে লাগিয়ে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করুন – আমাদের চুল মূলত কেরাটিন দিয়ে গঠিত। এটি অ্যামিনো এসিড দিয়ে তৈরি এক ধরণের প্রোটিন। তাই নতুন চুল গজানোর জন্যে অবশ্যই আপনার শরীরকে পর্যাপ্ত অ্যামিনো এসিড সরবরাহ করতে হবে। মাছ, মাংস, পনির, দুধ, ডিম – আপনার খাদ্য তালিকায় প্রতিদিনই এগুলোর অন্তত একটি রাখার চেষ্টা করুন।

আয়রন আর জিঙ্ক আপনার মাথার কোষে অক্সিজেন পরিবহন করে নিতে সহায়তা করবে আর নতুন টিস্যু তৈরিতে এবং ক্ষয়রোধে সহায়তা করবে। পরিমিত পরিমাণে আয়রন আর জিঙ্ক নতুন এবং দ্রুত চুল গজানোর জন্যে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। মটরশুঁটি, বাদাম, কলিজা, মাংস, দুধে আপনার প্রয়োজনীয় জিংক আর আয়রন বিদ্যমান।

পেয়ারা, লেবু, কমলা, আনারস, কামরাঙা, কাঁচা মরিচে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। আপনার চুলের বৃদ্ধি এবং গজানোর জন্য সহায়ক।

কালোজিরা নতুন চুল গজানোর জন্যে সহায়ক। মাথায় কালোজিরার তেল ব্যবহার করা আর খাবারে কালোজিরা ব্যবহার খুব ভালো ফল দেয়।

নিয়মিত চুল পরিষ্কার রাখা এবং আঁচড়ানো। কিন্তু অতিরিক্ত আঁচড়ানো চুল পড়া বাড়িয়ে দেয়।

পেঁয়াজ এর রস চুলের গোড়ায় ভালো করে লাগিয়ে ১০ মিনিট রাখুন | নিয়মিত ব্যবহার করলে নতুন চুল গজাবে।

মেহেদি পাতা কিছু দিন ঘন ঘন ব্যবহার করুন। পাতা বেটে লাগিয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন।

শুকনা আমলকি পানিতে ভিজিয়ে লাগাতে পারেন।

কালো জিরা তেল বা নির্যাস বেশি বেশি ব্যবহার করতে পারেন। নিয়মিত যত্ন নিন, পদ্ধতিগুলো মেনে চলুন। দেখবেন আপনার মাথায় নতুন চুল গজাতে শুরু করেছে।

বিডি-প্রতিদিন

টিকা ছাড়ছে বেক্সিমকো: প্রতি ডোজ ১১২৫ টাকা!

আগামী মাস থেকেই দেশের বাজারে করোনা ভাইরাসের টিকা বিক্রি শুরু করতে পারে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস।

বেক্সিমকোর চিফ অপারেটিং অফিসার (সিওও) রাব্বুর রেজার বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এ খবর দিয়েছে রয়টার্স।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, খোলা বাজারে বিক্রির জন্য ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে ৩০ লাখ ডোজ করোনা টিকা কিনছে বেক্সিমকো।

দাম কত হবে

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রেজেনেকার এই টিকার প্রতি ডোজ বেক্সিমকো কিনবে ৮ ডলার দিয়ে। সরকারকে দেওয়ার জন্য তারা যে দামে টিকা কিনছে, এই দাম তার প্রায় দ্বিগুণ।

সাধারণ মানুষকে এই টিকার প্রতি ডোজ কেনার জন্য ব্যয় করতে হবে প্রায় ১,১২৫ টাকা (১৩.২৭ ডলার)। প্রত্যেকের জন্য দুই ডোজ টিকা কিনতে খরচ হবে ২,২৫০ টাকা।

বেক্সিমকোর সিওও রাব্বুর রেজা রয়টার্সকে জানান, চলতি মাসের শেষের দিকে সরকার ও খোলা বাজারে বিক্রির জন্য টিকা সরবরাহ শুরু করবে সেরাম ইনস্টিটিউট। এরইমধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউটের সঙ্গে ১০ লাখ ডোজ টিকার জন্য চুক্তি করেছে বেক্সিমকো। এর সঙ্গে যোগ হতে পারে আরও ২০ লাখ ডোজ টিকা।

রেজা জানিয়েছেন, শুধু সেরাম নয়, বায়োলোজিক্যাল ই ও ভারত বায়োটেকের সঙ্গেও প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে। কিন্তু সেরামের সঙ্গেই যেহেতু চুক্তি হয়েছে, তাই আপাতত টিকা নিয়ে বেক্সিমকো কাজ করবে। তবে সরকার অ্যাস্ট্রেজেনেকার টিকার বাইরে কোনো টিকা চাইলে সেভাবেই আলোচনা হবে।

ভারত থেকে টিকা এনে বাংলাদেশে সরবরাহের জন্য গত অগাস্টে সেরাম ইনস্টিটিউটের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয় বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। আগামী মাস থেকেই তারা সরকারকে প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা সরবরাহ করবে বলে কথা রয়েছে।

বিডি প্রতিদিন

চীনের টিকা নিলেন ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট

ইন্দোনেশিয়ায় প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো চীনের তৈরি করোনা টিকা নিয়েছেন। আজ বুধবার উইদোদো টিকা নেওয়ার মাধ্যমে দেশটিতে গণটিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন হল। এ বছরের মধ্যেই ১৮০ মিলিয়ন নাগরিককে টিকার আওতায় আনার লক্ষমাত্রা ঠিক করেছে দেশটি।

রাজধানী জাকার্তায় রাষ্ট্রীয় প্রাসাদে ৫৯ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট জোকো টিকা গ্রহণ করেন। এই সময় তার পাশে দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রীসহ বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ও ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। তার টিকা নেওয়ার পুরো সময়টা টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। ইনজেকশন নেয়ার সময় হাসতে হাসতে উইদোদো বলেন, আমি আসলে তেমন কিছু অনুভব করছি না। দেশের প্রথম ব্যক্তি হিসেবে চীনের তৈরি টিকাটির প্রথম ডোজ নিলেন প্রেসিডেন্ট। পরবর্তীতে তাকে দ্বিতীয় ডোজ নিতে হবে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে জোকো বলেন, করোনার সংক্রমণ প্রবাহ বন্ধ করতে এই টিকাদান কর্মসূচি গুরুত্বপূর্ণ। ইন্দোনেশিয়ার সবার নিরাপত্তা ও সুস্থতার জন্য এমন একটি টিকা অপরিহার্য।

চলতি সপ্তাহে দেশটির নিয়ন্ত্রক সংস্থা চীনের উদ্ভাবিত সিনোভ্যাক টিকার অনুমোদন দিয়েছে। টিকাটির কার্যকারিতা ৬৫.৩ শতাংশ বলে পরীক্ষায় দেখা গেছে। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটির শীর্ষ ধর্মীয় নেতারা এই টিকাকে হালাল বলে অনুমোদন দিয়েছেন। তাদের মতে, ইসলাম অনুসারে এই টিকার অনুমোদন দেওয়া যায়।

দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটিতে এ পর্যন্ত সাড়ে আট লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ২৫ হাজার। কিন্তু পরীক্ষার হার কম থাকায় আসল সংক্রমণ সংখ্যা প্রত্যাশার চেয়েও বেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্র: এবিসি নিউজ।

শরীর চনমনে ও চুল উজ্জ্বলতায় ব্যবহার করুন চা-পাতা

শরীর চাঙা রাখার পাশাপাশি ত্বক ও চুলের সৌন্দর্য বাড়াতে বেশ ভূমিকা রাখে চা। বলিরেখা ও বয়সের ছাপ কমানো এবং চুল উজ্জ্বল ও মোহনীয় করতে চায়ের প্রয়োজন অপূরণীয়।

রূপচর্চা-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন বলা হয়েছে, বয়সের আগে অনেকেরই ত্বকে বয়সের ছাপ ও বলিরেখা পড়ে যায়। এই সমস্যা কমাতে ঠাণ্ডা চা পাতার ব্যাগ ত্বকে ব্যবহার করলে উপরকার পাওয়া যাবে। এটা চোখের চারপাশের ত্বককে টান টান করে, বলিরেখা কমাতে এটা সবচেয়ে সহজ উপায়। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে এই পদ্ধতি অনুসরণ করলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

অনেকেরই সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরে চোখের চারপাশে ফোলাভাব দেখা যায়। এই সমস্যার সমাধান করতে ও চোখের চারপাশের বয়সের ছাপ কমাতে ঠাণ্ডা টি ব্যাগ ব্যবহার করুন। এটা চোখের চারপাশের ত্বককে টানটান রাখে ও এর প্রদাহনাশক উপাদান ও মৃদু ক্যাফেইন চোখ ফোলাভাব কমাতে সহায়তা করে।

 

‘ব্ল্যাক টি’ চুলে প্রাকৃতিক রং আনে। গোসলের পরে ঠান্ডা চা পাতা দিয়ে চুল ধুয়ে নিন, এটা চুলকে কালো ও চকচকে করে। চাইলে এতে মেহেদি যোগ করে চুলের রং বাড়াতে পারেন। ব্ল্যাক টি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ যা উন্মুক্ত রেডিকেল থেকে রক্ষা করে ও বিষাক্ত উপাদান বের করে দিতে সহায়তা করে। ‘ব্ল্যাক টি’ দাগের ওপরে ব্যবহার করলে এটা দাগ কমাতে সহায়তা করে। ব্যবহারের আগে খেয়াল রাখতে হবে যেন গরম না থাকে, এতে ত্বকের ক্ষতি হবে। টি ব্যাগ ঠান্ডা করে ত্বকে ব্যবহার করতে হয়।

কীভাবে মানুষ বার্ড ফ্লুতে সংক্রমিত হয়? জেনে নিন প্রতিরোধের উপায়

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিধ্বস্ত গোটা দুনিয়া। এর মধ্যেই প্রতিবেশি ভারতের চিন্তা বাড়িয়েছে বার্ড ফ্লু। ইতোমধ্যে দেশটির ৯টি রাজ্যে বার্ড ফ্লু সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। এতে ওই রাজ্যে জারি করা হয়েছে সতর্কতা।

বার্ড ফ্লু আসলে কী?
বার্ড ফ্লু বা আভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা শুধু যে পাখিদের জন্য মারাত্মক, তা নয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, মানুষ বা পশু বাহকের সংস্পর্শে এলে তাদেরও ক্ষতি হতে পারে। তবে এই ভাইরাসের বেশিরভাগ প্রকৃতি শুধু পাখিদের মধ্যেই দেখা যায়। ১৯৯৭ সালে প্রথম মানুষের মধ্যে এই এইচ৫এন১ সংক্রমণ দেখা যায়।

কীভাবে বুঝবেন এইচ৫এন১ দ্বারা সংক্রামিত হয়েছেন?

কাশি
ডায়রিয়া
শ্বাসকষ্ট
১০০ ডিগ্রির ওপর জ্বর
মাথা যন্ত্রণা
পেশীতে ব্যথা
সর্দি
গলা ব্যথা
অস্থিরতা

কীভাবে মানুষ সংক্রামিত হয়?

বার্ড ফ্লু’র অনেক ধরন রয়েছে। এইচ৫এন১ মানুষের মধ্যেও সংক্রামিত হতে পারে। ১৯৯৭ সালে হংকংয়ে প্রথম এই সংক্রমণ দেখা যায়। তখন ৮০ জন আক্রান্ত হয়। মারা যায় একজন। বার্ড ফ্লু-তে আক্রান্ত মুরগি বা পাখির মল, নাক, চোখ বা মুখ থেকে যে রস পড়ে, তার সংস্পর্শে এলে মানুষ আক্রান্ত হতে পারে। তবে মানুষের থেকে মানুষের শরীরে এই ভাইরাস সংক্রমণের হার খুবই কম।

কাদের এই সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি?

পোলট্রির কর্মী বা পালক
স্বাস্থ্যকর্মী
পশু চিকিৎসক
ঠিকভাবে রান্না না করে মাংস বা ডিম খেলে

চিকিৎসা কী?

একেক ধরনের বার্ড ফ্লুর উপসর্গ একেক রকম। চিকিৎসাও একেক রকম। সাধারণত অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া হয়।

প্রতিরোধের উপায়?
কিছু বিষয়ে সাবধান হলে বার্ড ফ্লু’র সংক্রমণ রুখে দেওয়া যায়।

সংক্রামিত পাখির সংস্পর্শে যাবেন না
খোলা বাজারে না যাওয়া ভালো
মাংস ও ডিম ভালো করে রান্নার পর খান
প্রয়োজনে টিকা নিতে পারেন

বিডি প্রতিদিন

ভারত থেকে ৩ কোটি টিকা নেবে মিয়ানমার

ভারত থেকে আগামী ফেব্রুরায়ী মাসের মধ্যে ৩ কোটি করোনা টিকা নেবে মিয়ানমার। গতকাল শুক্রবার মিয়ানমারের রাষ্ট্রপতির কার্যালয় থেকে এ তথ্য জানানো হয়। বিশ্বের বৃহত্তম টিকা প্রস্ততকারক কোম্পানি, সিরাম ইন্সটিটিউট অফ ইন্ডিয়া অক্সফোর্ড এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকা’র টিকাটি কোভিশিল্ড নামে তৈরি করেছে। আর এ টিকাই নিতে যাচ্ছে মিয়ানমার।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের মহাপরিচালক ইউ জাও এইচটি এক বিবৃতিতে বলেন, টিকা অর্ডারের জন্য প্রাথমিকভাবে ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করার পরিকল্পনা করছে তাদের সরকার। তিনি বলেন, মিয়ানমার সরকার এই টিকাটি বেছে নেয়ার কারণ, ভ্যাক্সিন টি ২-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা যায় এবং এটি মিয়ানমারের জলবায়ুর জন্যও উপযুক্ত।

এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া এবং চীন থেকে করোনা টিকা কেনার চেষ্টা করেছিল মিয়ানমার।

সূত্র: মিজিমা নিউজ।

অতিরিক্ত ভিটামিন সি গ্রহণে ক্ষতি

রোগ প্রতিরোধের বিষয়টি সবচেয়ে বেশি সার্চ করা হয়েছে গেলো বছর। করোনাভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করায় আমাদের স্বাস্থ্যের উপর গুরুত্ব নিতে বাধ্য করা হয়েছে। ভ্যাকসিন বাজারে চলে আসলেও সবার হাতে পৌঁছাতে আরো অনেক বেশি সময় লাগবে।

আমরা সবাই জানি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন কি ধরণের ভূমিকা পালন করে। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার পাশাপাশি আমরা ভিটামিন সি এর সাপ্লিমেন্ট খাচ্ছি।  তবে আমরা যখন ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার পাশপাশি ভিটামন সি সাপ্লিমেন্ট খাচ্ছি তখন তৈরি হবে আরো অনেক সমস্যা।

তবে অন্যান্য খাবারের মত বেশি পরিমাণে ভিটামিন সি খাওয়া শরীরের অনেক সমস্যা তৈরি করতে পারে।
মানুষ যখন বেশি খায় বেশি খাওয়ার যে একটা খারাপ দিক আছে সে বিষয়টা ভুলে যায়। শরীরের জন্য ভিটামিন সি কতটা প্রয়োজন সে সম্পর্কে না জানা অতিরিক্ত ওষুধের কারণ হতে পারে।

গবেষণা  অনুসারে, প্রতিদিনি ৬৫ থেকে ৯০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি খাওয়া উচিত উপরে ২ হাজার মিলিগ্রাম। একটি কমলায় প্রায় ৫০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি থাকে, সুতরাং দিনে দুইটি কমলা খেলে শরীরে চাহিদা পূরণ হয়েও আরো বেশি হয়।

ভিটামিন সি গ্রহণের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া:
ডায়রিয়া
পেটে ব্যাথা
বমি বমি ভাব
অনিদ্রা

ভিটামিন সি গ্রহণ যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনি একটি স্বাস্থ্যকর ডায়েট করাও আপনার জন্য জরুরি।

বিডি প্রতিদিন

বায়ু দূষণের কারণে বাংলাদেশে গর্ভপাত বাড়ছে : ল্যানসেট

বায়ু দূষণের কারণে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর গর্ভবতী নারীদের মৃত সন্তান প্রসব এবং গর্ভপাতের ঝুঁকি বৃদ্ধি পাচ্ছে। সম্প্রতি বিখ্যাত স্বাস্থ্যবিষয়ক গবেষণা সাময়িকী ‘দ্য ল্যানসেট প্ল্যানেটরি হেলথ জার্নাল’র একটি গবেষণা থেকে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

গবেষণা প্রতিবেদন বলছে, বায়ুদূষণের কারণে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে গর্ভপাতের সংখ্যা বাড়ছে। নির্দিষ্ট সময়ের আগে সন্তানের জন্ম দিচ্ছেন অনেক মা। সেসব শিশুর ওজনও স্বাভাবিকের তুলনায় অনেকটাই কম।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মান অনুযায়ী, প্রতি ঘনমিটার বাতাসে ১০ মাইক্রোগ্রাম পিএম২.৫ থাকলে তাকে সহনীয় বলা যেতে পারে। সেখানে দেশে প্রতি ঘনমিটারে পিএম২.৫ আছে ৬১ মাইক্রোগ্রাম। ফলে ফুসফুসে ক্যানসার ও কিডনি বিকলের মতো রোগও ব্যাপকভাবে ছড়াচ্ছে।

চীনের পিকিং ইউনিভার্সিটির তাও জিউ’র নেতৃত্বে এই গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। তিনি বলছেন, ‘গর্ভাবস্থার ক্ষতিতে পৃথিবীতে দক্ষিণ এশিয়াই সবচেয়ে বেশি মাশুল গুণছে। পৃথিবীতে এই অঞ্চলের বাতাসে সবচেয়ে বেশি পিএম২.৫ পাওয়া যায়।’

পরিসংখ্যান বলছে, ভারত-পাকিস্তান-বাংলাদেশের বাতাসে পিএম ২.৫-এর পরিমাণ মারাত্মক ভাবে বেশি। এটি এমন এক ধরনের দূষিত কণা, যা নিশ্বাসের সঙ্গে ফুসফুসের একেবারে গভীরে চলে যেতে পারে এবং সেখান থেকে খুব সহজেই রক্তে মিশে যায়।

ফলে বাড়ে হৃদরোগ এবং ফুসফুসের রোগের আশঙ্কা। শুধু তাই নয়, এই গবেষণা দেখাচ্ছে, এই ধরনের দূষিত কণা হবু মায়েদের জীবনে ডেকে আনতে পারে মারাত্মক বিপদ। পিএম ২.৫ ছেদ করে ফেলতে পারে তাদের প্লাসেন্টা। আর তাতেই ঘটে যেতে পারে গর্ভপাতের মতো ঘটনা।

দক্ষিণ এশিয়ার এই দেশগুলোতে প্রতি বছর বিপুল পরিমাণে গর্ভপাতের ঘটনা ঘটে। সংখ্যাটা এখন গড়ে প্রায় সাড়ে তিন লাখ ছুঁয়েছে। যার পেছনে বড় কারণই হচ্ছে বায়ু দূষণ। এমনই ইঙ্গিত দিচ্ছে এই পরিসংখ্যান। দূষণের পরিমাণ যে হারে বাড়ছে, তাতে এই সংখ্যা আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা করছেন গবেষকরা।

বিডি প্রতিদিন

করোনার টিকা নিলেন সৌদি বাদশা সালমান

করোনা মোকাবেলায় টিকা নিয়েছেন সৌদি আরবের বাদশা সালমান। স্থানীয় সময় শুক্রবার তিনি প্রথম ডোজ এই টিকা নিয়েছেন বলে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সৌদি প্রেস এজেন্সির বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম বাদশার টিকা নেওয়ার দুটি ছবি এবং একটি ভিডিও ক্লিপ প্রকাশ করেছে। সেখানে দেখা গেছে, একজন স্বাস্থ্যকর্মী বাদশা সালমানকে টিকা দিচ্ছেন।

এদিকে এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ফাইজার-বায়োএনটেকের করোনা টিকার প্রথম চালান পাওয়ার পর গত ১৭ ডিসেম্বর থেকে সৌদি আরবে টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এএফপি বলছে, সেখানে তিন ধাপে করোনার টিকা দেওয়া হবে। প্রথম ধাপে ৬৫ বছরের বেশি বয়সীদের টিকা দেওয়া হবে। দ্বিতীয় ধাপে ৫০ বছরের বেশি বয়সীদের এবং শেষ ধাপে বাকি সবাইকে টিকা দেওয়া হবে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, এই টিকা তাদের দেশের নাগরিক ও বাসিন্দাদের দেওয়া হবে বিনামূল্যে।

এবার মর্ডানা’র টিকা অনুমোদন দিল ব্রিটেন

মডার্নার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা অনুমোদন দিয়েছে ব্রিটেন। দেশটির ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (এমএইচআরএ) গতকাল শুক্রবার করোনার তৃতীয় টিকা হিসেবে মডার্নার তৈরি ভ্যাকসিন অনুমোদন দেয়।

এমএইচআরএ’র বিজ্ঞানিদের দল এবং ওষুধ সংক্রান্ত স্বাধীন কমিশনের সমন্বিত পর্যবেক্ষণের পর এই টিকা অনুমোদন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ব্রিটিশ সরকারের ওয়েবসাইটে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, মডার্নার টিকা ব্রিটিশ মানদণ্ডের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং এটি সুরক্ষা, মান ও কার্যকারিতার বিচারে নির্ভরযোগ্য।

গার্ডিয়ান পত্রিকা জানিয়েছে, ব্রিটেন এরই মধ্যে মডার্নার টিকার ৭০ লাখ ডোজ নেওয়ার চাহিদা দিয়েছে। ব্রিটেনের আগে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং যুক্তরাষ্ট্র এই টিকা অনুমোদন দিয়েছে। এই টিকা ফাইজার/বায়োএনটেকের টিকার মতো একই প্রযুক্তিতে তৈরি।

এর কার্যকারিতা ৯৪ শতাংশ। সর্বোচ্চ কার্যকরিতা নিশ্চিতে এটিরও দুই ডোজ প্রদান করতে হয়। মডার্নার টিকা হচ্ছে ব্রিটেনে অনুমোদন পাওয়া দ্বিতীয় এমআরএনএভিত্তিক টিকা।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বর মাসে ফাইজার/বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন অনুমোদন করা হয়েছিল। এ নিয়ে এমএইচআরএ’র প্রধান নির্বাহী ড. জুন রাইন বলেন, আজকের এই অনুমোদন স্বাস্থ্যখাত ও মানুষের জন্য উৎসাহজনক বার্তা নিয়ে এসেছে। করোনার তৃতীয় ভ্যাকসিন অনুমোদন দেওয়ার মাধ্যমে আমরা একটি গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে গেলাম। আমি এই সংস্থার প্রধান হিসেবে গর্বিত।

তিনি আরো বলেন, করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে বৈশ্বিক যুদ্ধে জয় পেতে এবং মানুষের জীবন বাঁচাতে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আমি আবারো বলতে চাই, আমাদের প্রথম লক্ষ্যই হচ্ছে মানুষকে সুরক্ষিত করা। সব করোনা ভ্যাকসিনই পর্যবেক্ষণে রেখেছে এমএইচআরএ।